ড. মাফরুহা হোসেনের মৃত্যুতে রাবিতে শোকর‌্যালি

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ০০:০৭:০৫

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মাফরুহা হোসেন সেঁজুতির (৪৬) মৃত্যুতে কালো ব্যাজ ধারণ করে শোকর‌্যালি করেছে বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় শোকর‌্যালিটি সৈয়দ ইসমাঈল হোসেন সিরাজী ভবন থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

ড. মাফরুহা গত বুধবার রাজধানীর ডেল্টা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টা ৫১ মিনিটে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি প্রায় ৫-৬ বছর ধরে ক্যান্সারে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার জয়পুরহাটে নামাযে জানাযা শেষে তার পারিবারিক গোরস্থানে মরহুমার দাফন সম্পন্ন করা হয়।

জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার তেলিহার গ্রামের মরহুম অধ্যাপক আলতাফ হোসেনের মেয়ে ড. মাফরুহা হোসেন সেঁজুতি। মৃত্যুর সময় সেঁজুতি স্বামী ড. মো. মুস্তাফিজুর রহমান, মেয়ে শ্রুতি রহমানসহ অনেক গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

সঙ্গীত বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ড. মাফরুহা হোসেন সেঁজুতির জন্ম ১৯৭০ সালে ঢাকায়। পড়াশোনা করেছেন ঢাকাতেই। ১৯৯০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি. মিউজ. ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। ১৯৯৪ সালে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগ থেকে ‘কণ্ঠসঙ্গীত’-এ বিএ অনার্স, এবং এখান থেকেই কণ্ঠসঙ্গীতে একাত্তর সম্পন্ন করেন। পরে ২০০৯ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচ. ডি. সম্পন্ন করেন। এই পিএইচ. ডি.’র জন্য এশিয়াটিক সোসাইটি অব বাংলাদেশ-এর ‘এ.এস.বি. বৃত্তি’ লাভ করেন।

এছাড়াও ঢাকা উইমেন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে সেঁজুতি সঙ্গীত বিভাগে প্রভাষক হিসেবে প্রায় চার বছর চাকরি করেন। বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর সঙ্গীত প্রশিক্ষণ কোর্সের প্রশিক্ষক হিসেবেও খ-কালীন প্রায় চার বছর ধরে কাজ করেন।

ড. মাফরুহা বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘ক’ শ্রেণিমানের তালিকাভুক্ত কণ্ঠসঙ্গীতশিল্পী, বাংলাদেশ বেতারের ‘খ’ শ্রেণিমানের কণ্ঠসঙ্গীতশিল্পী এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘খ’ তালিকাভুক্ত সুরকার ও সঙ্গীতপরিচালক ছিলেন।

সেঁজুতি বেশ কয়েকটি নাটকের আবহসঙ্গীত পরিকল্পনা করেছেন। সেগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো ড. মো. মুস্তাফিজুর রহমানের ‘দৃষ্টি’, ‘আ¤্রকানন’, ‘সবুজদ্বীপের সাতপাখি’, ‘যন্ত্রণা’, ‘টোনাটুনি আর বাঘের গল্প’, ‘মহামান্য রাজা ও মাননীয় মন্ত্রী’ প্রমুখ।

এদিকে ড. মাফরুহার মৃত্যুতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: