লবঙ্গ একটি মশলা হিসেবে প্রায় সব রান্নায় ব্যবহৃত হয়ে থাকে। মূলত রান্নার স্বাদ বৃদ্ধির জন্য লবঙ্গ ব্যবহার করা হয়। কিন্তু আপনি জানেন কি রান্নায় ব্যবহার ছাড়াও এই লবঙ্গের আছে নানা স্বাস্থ্যগুণ? অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, প্রোটিন, ফাইবার, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, জিঙ্ক, ভিটামিন এ, ভিটামিন কে, ভিটামিন সি এবং ভিটামিন বি সমৃদ্ধ একটি মশলা লবঙ্গ। দেখে নিন বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা দূর করতে এর ব্যবহার।

১। বদহজম দূর করতে লবঙ্গ খুব ভালো কাজ করে। এনজাইম বৃদ্ধি করে পেটের গ্যাস, বমি বমি ভাব, পেট ব্যথা কমিয়ে দেয়। লবঙ্গের গুঁড়ো মধুর সঙ্গে মিশিয়ে খেলে গ্যাসের সমস্যা দূর হয়ে যায়।

২। হঠাৎ শুরু হওয়া দাঁতের ব্যথার ঘরোয়া চিকিৎসা এই লবঙ্গ। লবঙ্গের তেল এক টুকরো তুলোতে লাগিয়ে ব্যথার দাঁতের উপর রেখে দিন। এটি দাঁতের ব্যথা দূর করে ইনফেকশন হওয়া থেকে দাঁতকে রক্ষা করবে।

৩। উচ্চ ডায়াবেটিস রোগিদের জন্য লবঙ্গ অনেক উপকারি। এটি শর্করার মাত্রা স্বাভাবিক রেখে শরীরের রক্ত থেকে কোষের মধ্যে বাড়তি চিনি পরিবহন করতে সাহায্য করে, নিয়মিত লবঙ্গ খেলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করা সহজ হবে।

৪। গবেষণায় দেখা গেছে, লবঙ্গে ইউজিনল এবং ইউজিনল ডেরিভাটিভস যা হাড়ে ঘনত্ব এবং মিনারেল বৃদ্ধি করে থাকে। নারীরা এবং বয়স্ক মানুষদের নিয়মিত লবঙ্গ খেলে হাড়ের সমস্যা অনেকটা কমে যায়।

৫। পেশীর প্রদাহ এবং বাতের ব্যথা দূর করতেও লবঙ্গের জুড়ি নেই। বাতের ব্যথার স্থানে লবঙ্গের তেল ম্যাসাজ করুন। দেখবেন কিছুক্ষণের মধ্যে ব্যথা কমে গেছে।

৬। এক গ্লাস দুধে লবঙ্গের গুঁড়ো এবং লবণ মিশিয়ে পান করুন। এটি মাথা ব্যথা দ্রুত দূর করে দিবে।

৭। অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ লবঙ্গ লিভার আক্রান্ত হতে পারে এমন উপাদানসমূহ ধ্বংস করে থাকে। ফলে নিয়মিত লবঙ্গ খেলে লিভার সুস্থ থাকে। এছাড়া লবঙ্গ ব্রেস্ট ক্যান্সার, ওভারিয়ান ক্যান্সার প্রতিরোধ করে থাকে।

৮। তুলসি, পুদিনা, এলাচ ও লবঙ্গ মেশানো পানির শরবত মানসিক চাপ দূর করতে সহায়তা করে।

৯। লবঙ্গ ব্রণের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। ব্রণের দাগ দূর করতেও লবঙ্গের পেস্ট খুব কার্যকর।

১০। লবঙ্গ শরীর থেকে ক্ষতিকর উপাদানগুলো সরিয়ে রক্তকে পরিশোধন করতে ভূমিকা রাখে।

১১। লবঙ্গের তেলের জীবাণুনাশক গুণ রয়েছে। এটি ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া দূর করতে খুবি কার্যকর।