স্পোর্টস ডেস্ক:

রিয়াল মাদ্রিদ লা লিগার শিরোপা লড়াইয়ের দৌড় থেকে একরকম ছিটকে পড়লো। ঘরের মাঠে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের কাছে ১-০ গোলের পরাজয়ে লিগার ১২ ম্যাচ বাকি থাকতেই শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার চেয়ে ৯ পয়েন্টে পিছিয়ে লস ব্লাঙ্কোসরা। বার্সেলোনা আজ সেভিয়াকে ঘরের মাঠে হারালে বার্সা ১২ পয়েন্টে এগিয়ে যাবে।

শনিবার সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে দিয়েগো সিমিওনের দলের জয়সূচক গোলটি করেন আন্তনিও গ্রিজমান। বছরের শুরুতে কোচ হিসেবে যোগ দেওয়া জিদানের অধীনে রিয়ালের এটাই প্রথম হার। গত অক্টোবরে প্রথম পর্বে অ্যাটলেটিকোর মাঠ থেকে ১-১ গোলে ড্র করে ফিরেছিল রিয়াল। ওই সময় কোচ ছিলেন রাফায়েল বেনিতেজ।

প্রথম ৩০ মিনিটের খেলা ঢিমেতালে চলার পর ম্যাচে কিছুটা উত্তেজনা আসে। করিম বেনজেমাকে ফাউল করায় হলুদ কার্ড দেখেন ডিফেন্ডার দিয়েগো গদিন। রোনালদোর জোরালো ফ্রি-কিক গোলরক্ষক ঠেকিয়ে দিলেও ফিরতি বলে গোলের সুযোগ তৈরি হয়েছিল রিয়ালের। কিন্তু ফরাসি স্ট্রাইকার বেনজেমার কোনাকুনি শট পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়।

আট মিনিট বাদে কেইলর নাভাসের নৈপুণ্যে বড় বাঁচা বেঁচে যায় রিয়াল। বক্সের অনেকটা বাইরে থেকে ফরাসি ফরোয়ার্ড গ্রিজমানের আচমকা বিদ্যুৎ গতির শট শেষ মুহূর্তে নিচু হয়ে ক্রসবারের কোল ঘেঁষে জালে ঢুকতে যাচ্ছিল। অসাধারণ দক্ষতায় কোনোমতে এক হাত দিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান কোস্টারিকার এই গোলরক্ষক।

পরের মিনিটে আবারও রিয়ালের রক্ষাকর্তা নাভাস; স্প্যানিশ মিডফিল্ডার কোকের দুরূহ কোণ থেকে নেওয়া শট ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দেন তিনি। দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে এ পর্যন্ত ম্যাচের সহজতম সুযোগটি পেয়েছিল রিয়াল। বক্সের মধ্যে ফাঁকায় বল পেয়ে জোরালো কোনাকুনি শটও নেন রোনালদো, কিন্তু একটুর জন্য সেটা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

এর তিন মিনিট বাদেই দারুণ এক পাল্টা আক্রমণে জয়সূচক গোলটি করেন গ্রিজমান। ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার ফিলিপে লুইসের সঙ্গে একবার বল দেওয়া-নেওয়া করে বক্সের মধ্যে বিনা বাধায় সহজেই লক্ষ্যভেদ করেন এই ফরাসি ফরোয়ার্ড। এবারের লিগে গ্রিজমানের এটা ত্রয়োদশ গোল।

৬৮তম মিনিটে আবারও সমর্থকদের হতাশায় ডোবান রোনালদো। ১০ গজ দূর থেকে হেড দিলেও বল গোলরক্ষকের হাতে গিয়ে পড়ে। ৮৪তম মিনিটে আবারও দুর্বল হেডে সুযোগ নষ্ট করেন এই পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। শেষ দিকে দানিলোর কোনাকুনি শটও পোস্টের কোল ঘেঁষে বাইরে চলে গেলে সাত ম্যাচ পর ঘরের মাঠে হারের তেতো স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়ে রোনালদো-বেনজেমারা। ২৬ ম্যাচে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে তারা। অ্যাটলেটিকোর পয়েন্ট ৫৮। এক ম্যাচ কম খেলা বার্সেলোনা ৬৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে। গোল.কম