উত্তরপ্রদেশের মির্জাপুরের এক বেসরকারি স্কুলের সঞ্চালক তার চার বন্ধুর সঙ্গে মিলে নিজের স্কুলের এক শিক্ষিকাকে গণধর্ষণ করে৷ মূল অভিযুক্ত ধর্ষণের ভিডিও বানিয়ে তা ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ফের শিক্ষিকাকে ধর্ষণ করে৷

ব্ল্যাকমেলের শিকার শিক্ষিকা ঘটনার কথা পরিবারকে জানালে তার পরিবার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে৷ অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে৷

পুলিশ স্কুল সঞ্চালককে গ্রেফতার করে তার কাছ থেকে ভিডিও ক্লিপ উদ্ধার করে সেটি বাজেয়াপ্ত করেছে৷ অন্য পাঁচ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ৷

নির্যাতিতা জানিয়েছে, এই ঘটনা ২০১৪ সালের ২৯ নভেম্বরের৷ ঘটনার দিন সকালে স্কুল সঞ্চালক মনোজ তার বাড়িতে এসে স্কুলে কাজ কথা বলে তাকে বাড়ি থেকে নিয়ে যায়৷ রাস্তায় সে একটি বাগানের কাছে দাঁড়ায় যেখানে আগে থেকেই তার পাঁচ বন্ধু উপস্থিত ছিল৷ অভিযোগ সকলেই তাকে ধর্ষণ করে৷

এমনকি তারা ধর্ষণের ভিডিও তৈরিও করে৷ অভিযুক্তরা তাকে হুমকি দেয়, যদি সে ঘটনার কথা কাউকে জানায় তবে তারা ওই ভিডিও ফাঁস করে দেবে৷ মূল অভিযুক্ত মনোজ গত ২৯ ডিসেম্বর তাকে ফের স্কুল ডেকে এনে ভিডিও ফাঁস করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে৷ ব্ল্যাকমেলের শিকার যুবতী রবিবার রাতে এই ঘটনা তার পরিবারকে জানায়৷ এরপরেই নির্যাতিতার পরিবার পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন৷ পুলিশ মনোজ সহ মোট ছয় জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন৷

এসও কমল সিং যাদব জানিয়েছেন, মূল অভিযুক্ত মনোজকে গ্রেফতার করে তার মোবাইল থেকে ভিডিও ক্লিপ উদ্ধার করা হয়েছে৷ ওই ভিডিও ক্লিপটি মাত্র দেড় মিনিটের৷ তবে সেখানে সমস্ত অভিযুক্তের মুখ দেখা গিয়েছে৷ নির্যাতিতাকে মেডিকেল টেস্টের জন্য হাসাপাতালে পাঠান হয়েছে৷