শাওন ইসলাম,

ষ্টাফ করেসপন্ডেন্ট:

পল্টন থানার নাশকতার তিন মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে হাইকোর্টের দেয়া জামিনের সময় ১৫ দিন বাড়ানো হয়েছে। প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ সোমবার এ আদেশ দেন। আগামী ১৫ দিন পর জামিনের মেয়াদ শেষ হলে তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করে আবারও জামিন চাইতে হবে।

আজ আদালতে ফখরুলের পক্ষে শুনানী করেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট সগীর হোসেন লিওন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

এর আগে ২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারিকে ঘিরে বিএনপির নেতৃত্বধীন ২০ দলীয় জোটের আন্দোলনের সময় নাশকতার অভিযোগ এনে পল্টন থানায় মামলা করে পুলিশ। এ সকল মামলায় মির্জা ফখরুলের আবেদেন প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট তিন মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন এবং তাকে কেন স্থায়ী জামিন দেয়া হবে তা জানতে চেয়ে রুল জারী করেন আদালত।

এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিলে যায় রাষ্ট্রপক্ষ শুনানী করে আপিল বিভাগ রুল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তাকে জামিন দেন। এবং জামিনের মেয়াদ শেষে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেন। এছাড়াও হাইকোর্টের রুল নিষ্পত্তি করতে বলেন।

এরপর ফখরুল হাইকোর্টের জামিনরে মেয়াদ চ্যালেঞ্চ করে আপিলে বিভাগে লিভ টু আপিল দায়ের করেন। কয়েকবার শুনানী করে আজ আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।

ফখরুলের আইনজীবীদের দাবি, রুল নিষ্পত্তির মাধ্যমে সাধারণত মামলার বিচার শেষ না হওয়া পর্যন্ত জামিন হয়। কিন্তু এখানে মাত্র তিনমাসের জামিন দেওয়া হয়েছে। এ কারণে হাইকোর্টের আদেশ চ্যালেঞ্জ করে মির্জা ফখরুল গত ০৭ জানুয়ারি লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) করেন।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি এ আবেদনের শুনানি শেষে চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী আবেদনটি ১৮ ফেব্রুয়ারি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন। শুনানী করে আজ আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।