শাহাদাত হোসেন রাকিব,

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে দেশের বিভিন্ন স্থানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় ২৫৬২ জন আহত ও ৪৬৫ জন নিহত হয়েছে বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা।

একই সাথে দেশের সামগ্রিক মানবাধিকার পরিস্থিতি উদ্বেগজনক বলে মনে করে সংস্থাটি। সংস্থাটি বলছে, পুরো মাস জুড়েই আলোচনার শীর্ষে ছিল শিশু হত্যা ও নির্যাতন। পারিবারিক কোন্দলে আাহত ও নিহতের সংখ্যাও এই মাসে তুলনামূলক বেশী।

এছাড়া নারী নির্যাতন, আত্মহত্যা পারিবারিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক সহিংসতা, কথিত ক্রস ফায়ারে মানুষ হত্যা, অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার, ভারতীয় সিমান্ত রক্ষী বাহিনীর কর্তৃক নিরিহ মানুষ হত্যা গতানুগতিক ভাবেই যেন চলছে। মানুষের পারিবারিক, সামাজিক ও নৈতিক মূল্যবোধের অবক্ষয় বাড়ছে বলেও দাবি করা হয় প্রতিবেদনে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার ফেব্রুয়ারি মাসের গবেষনা সেলের পাওয়া তথ্য-উপাত্ত থেকে দেখা যায়, বিগত কয়েক মাসের মধ্যে ফেব্রুয়ারি মাসেই শিশু নির্যাতন ও হত্যার ঘটনা ঘটেছে সবচেয়ে বেশী। এই মাসে ৪০ জন শিশুকে নির্যাতন করা হয় এর মধ্যে হত্যা করা হয় ২৪ শিশুকে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ফেব্রুয়ারি মাসে যৌতুকের জন্য প্রাণ দিয়েছেন ৬ জন নারী এবং যৌতুকের কারনে আহত হয় ২৩ জন নারী, পারিবারিক কলহে নিহত হয় ২৮ জন ও আহত হয় ৬৯ জন, ধর্ষণের শিকার হয়েছে ২৫ জন নারী ও শিশু, কথিত ক্রস ফায়ারের নামে মৃত্যু হয় ১৩ জনের, এর মধ্যে পুলিশের ক্রস ফায়ারে নিহত হয় ৩ জন, র‌্যাব কর্তৃক ৮ জন ও অন্যান্য বাহিনী কর্তৃক ২ জন, আত্মহত্যা করেছে মোট জন ৩৬। এদের মধ্যে ৭জন পুরুষ ও ২৯ জন নারী, সারা দেশে সন্ত্রাসী কর্তৃক নিহত ৭৩ জন ও আহত হয় ১৪২ জন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ফেব্রুইয়ারি মাসে বিভিন্ন কারনে সামাজিক অসন্তোষের শিকার হয়ে নিহত হয়েছেন ৩১ জন এবং আহত হয়েছেন ৬৩২ জন, রাজনৈতিক সহিংসতায় আহত হয়েছে ১৭২ জন ও নিহত হয়েছে ২ জন, মাদকের প্রভাবে বিভিন্ন ভাবে আহত হয়েছে ৬ জন ও নিহতের সংখ্যা ১ জন। এছাড়া পানিতে ডুবে, অসাবধানবশত, বিদ্যুৎপৃস্ট হয়ে মৃত্যুবরন করেছে ৩৪ জন। এ মাসেও চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু হয় ৬ জনের। চলতি মাসে বিরোধী রাজনৈতিক দলকে নিয়ন্ত্রনের জন্য রাজনৈতিক অজুহাতে গনগ্রেফতার হয়েছে ৭২৫ জনেরও বেশী।