প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

‘আকবরকে পালাতে সহায়তাকারী পুলিশ সদস্যদেরও বিচার হবে’

   
প্রকাশিত: ৪:০৭ অপরাহ্ণ, ২৮ অক্টোবর ২০২০

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের নবনিযুক্ত কমিশনার নিশারুল আরিফ বলেছেন, পুলিশ হেফাজতে রায়হান হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি অপ্রত্যাশিত, অনভিপ্রেত। এর সঙ্গে পুলিশ সদস্যরা জড়িত থাকায় আমি লজ্জিত। এসআই আকবরকে পালাতে সহায়তাকারী পুলিশ সদস্যদেরও বিচারের আওতায় আনা হবে। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) রাতে রায়হানের বাড়িতে স্বজনদের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি। পলাতক এসআই আকবরকে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, আকবরের এসব কর্মকাণ্ড যদি কেনো পুলিশ কর্মকর্তা প্রশ্রয় দিয়ে থাকে, সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এর আগে, রাত ৮টায় তিনি নগরীর আখালিয়ায় রায়হানের বাড়িতে যান। সেখানে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে ন্যায়-বিচারের আশ্বাস দেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত ১১ অক্টোবর ভোরে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনের শিকার হন রায়হান আহমদ (৩৪) নামের এক যুবক। পরে রবিবার সকালে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রাতেই কোতোয়ালি মডেল থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার। পরে ওই ফাঁড়ি ইনচার্জসহ চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত এবং তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়। মামলাটি এখন তদন্ত করছে পিবিআই। এই মামলায় বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ির দুই সদস্য টিটু চন্দ্র দাস ও হারুনুর রশীদকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নিয়েছে পিবিআই।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: