প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

আগে তৈরি হতো খাদ্যদ্রব্য, করোনা সংকটকালে নকল স্যানিটাইজার

   
প্রকাশিত: ১০:৫৩ অপরাহ্ণ, ২ জুন ২০২০

রাজধানীর খিলগাঁও এলাকার রেজা ফুড প্রোডাক্টসে আগে সেখানে তৈরি হতো খাদ্যদ্রব্য। কিন্তু করোনার সংকট কাজে লাগিয়ে অধিক মুনাফার আশায় কারখানাটিতে তৈরি করা হচ্ছিলো নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার। অভিযান চালিয়ে হাতেনাতে প্রমাণ পায় র‍্যাব। নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন ও বাজারজাত করার দায়ে প্রতিষ্ঠানটিকে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করেছে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ বসুর নেতৃত্বে মঙ্গলবার (২ জুন) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অভিযানটি পরিচালনা করা হয়। এ সময় কারখানা থেকে বিপুল পরিমাণ নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার জব্দ করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জানান, রেজা ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেডের ফুডের ট্রেড লাইসেন্স আছে। কিন্তু করোনাভাইরাসের মধ্যে সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে কোনো ধরনের অনুমতি বা অনুমোদন ছাড়া নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করছিলো প্রতিষ্ঠানটি।

জানা গেছে, চাহিদা অনুযায়ী নকল স্যানিটাইজারগুলো সরবরাহ করে আসছিলো রেজা ফুড প্রোডাক্টস। চট্টগ্রামের অমনিবাস নামে একটি কোম্পানিকে স্যানিটাইজার সরবরাহ করছিল তারা। কোনো ধরনের চুক্তিপত্র ও ওই প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন যাচাই ছাড়াই তারা চট্টগ্রামে স্যানিটাইজার সরবরাহ করছে তারা।

পলাশ বসু আরো বলেন, তাদের তৈরি করা হ্যান্ড স্যানিটাইজারের বোতলে যে উপাদানগুলো উল্লেখ আছে অর্থাৎ আইসোপ্রোফাইল অ্যালকোহল, তা বিন্দুমাত্র নেই। এগুলো সব ভেজাল ও নকল প্রোডাক্ট। এছাড়া মেয়াদোত্তীর্ণ লেবেলবিহীন পণ্য আছে।

এসব অপরাধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে রেজা ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী রেজাউর রহমানকে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড এবং কারখানা সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: