শাহাদাত হোসেন রাকিব

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

আজও দুদকের মুখোমুখি স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজি

   
প্রকাশিত: ১২:১৫ অপরাহ্ণ, ১৩ আগস্ট ২০২০

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিদায়ী মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদকে দ্বিতীয় দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এদিকে করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে চিকিৎসা সুরক্ষা সামগ্রীসহ (পিপিই) বিভিন্ন কেনাকাটায় দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে গতকাল বুধবার (১২ আগস্ট) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে ডেকে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। দুদক পরিচালক মীর মো. জয়নুল আবেদীন শিবলীর নেতৃত্বে একটি দল সকাল ১০টা থেকে প্রায় ছয় ঘণ্টা ধরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। আজ বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে অনুসন্ধান দলের প্রধান শেখ মো. ফানাফিল্যা’র নেতৃত্বে একটি টিম তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন।

এর আগে বুধবার তাকে মাস্ক ও পিপিই ক্রয় দুর্নীতিতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ওই জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেছেন, দায়িত্বপালনকালে কোনো দুর্নীতি করিনি। আমি সৎ, দক্ষ,সজ্জন ও মেধাবী হিসেবে কাজ করে গেছি। রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদের বিরুদ্ধে মাইক্রোক্রেডিট, এমএলএম ব্যবসা ও হাসপাতালের নামে জনসাধারণের সঙ্গে প্রতারণা করে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ অনুসন্ধানে গত ৬ আগস্ট সাবেক ওই স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে হাজির হওয়ার জন্য নোটিশ দেওয়া হয়। সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমের বিরুদ্ধে জালিয়াতি ও প্রতারণার মাধ্যমে সরকারি অর্থ আত্মসাৎ, আয়কর ফাঁকি, ভুয়া নাম ও পরিচয়ে ব্যাংক ঋণ গ্রহণ করে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতসহ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ অনুসন্ধান করছে দুদক। রিজেন্ট হাসাপাতালের নামে এনআরবি ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে দেড় কোটি টাকা ও ফারমার্স ব্যাংক থেকে ১ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মো. সাহেদসহ বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে এরই মধ্যে পৃথক অভিযোগে দুই মামলা করে দুদক।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: