প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

আজ বাঁচা-মরার লড়াইয়ে মাঠে নামছে বার্সা-বায়ার্ন

   
প্রকাশিত: ৫:১৭ অপরাহ্ণ, ১৪ আগস্ট ২০২০

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এবারের আসরে দেখা মিলেছে চরম নাটকীয়তার। প্রতিযোগিতাটির সাবেক চ্যাম্পিয়নদের অধিকাংশই ছিটকে গেছে এরই মধ্যে। টিকে আছে কেবল স্প্যানিশ পরাশক্তি বার্সেলোনা ও জার্মান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ। আসরের সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে আজ শুক্রবার দিবাগত রাত (শনিবার) ১ টায় মুখোমুখি হতে যাচ্ছে দুটি দল।

দুটি দলই পাঁচবার জিতেছে ইউরোপ সেরা হয়েছে। আর দুই দল ইউরোপে একে অপরের বিপক্ষে খেলেছেও মোট ৫ টি টাই। সেমিফাইনালে ৩ বার, কোয়ার্টার ফাইনালে এবং গ্রুপ পর্বে একবার করে মুখোমুখি হয়েছে বার্সেলোনা। তবে এবারই প্রথমবারের মতো এই টুর্নামেন্টে এক লেগের ম্যাচ খেলবে বার্সা-বায়ার্ন। বার্সেলোনা ও বায়ার্ন মিউনিখও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জয় করেছে অনেকদিন হয়ে গেছে। বার্সা ইউরোপ সেরার মুকুট জয় করে সর্বশেষ ২০১৫ সালে। অপরদিকে বায়ার্ন মিউনিখ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জয় করে ২০১৩ সালে। ফলে দেখা যাচ্ছে ৫ ও ৭ বছর আগে শিরোপা জিতেছিল তারা। আর তাই তো শিরোপা জয়ের জন্য বেশ ক্ষুধার্তও তারা। এই মৌসুমে দুই দলের শক্তির দিকে তাকালে দেখা যাচ্ছে বার্সার চেয়ে এগিয়ে আছে বায়ার্ন মিউনিখই। তারা টানা আটবারের মতো জার্মানের ঘরোয়া প্রতিযোগিতা বুন্দেস লিগার শিরোপা জয় ছাড়াও ডিএফবি পোকালের শিরোপাও জয় করেছে। অপরদিকে এই মৌসুমে বার্সা এখন পর্যন্ত একটা শিরোপাও জয় করতে পারেনি।

আর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এই মৌসুমে বার্সার দলীয় পারফরমেন্স ভালো ছিল না। বার্সা যে রাউন্ড ষোলতে এসেছে সেটি বলতে গেলে মেসির একার কারণে। রাউন্ড ষোলর দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে নাপোলির বিপক্ষে ৩-১ গোলের জয় পায় বার্সা। সেই তিনটি গোলের ১টি নিজে করা ছাড়াও দলকে পেনাল্টি থেকে আরেকটি গোল আদায় করে দেন তিনি। বলতে গেলে বার্সার মূল শক্তিই হলেন মেসি। ফলে বার্সা যদি জয় পেতে যায় তাহলে মেসিকে জ্বলে উঠতেই হবে। অপরদিকে রাউন্ড ষোলতে বায়ার্ন মিউনিখ ইংলিশ ক্লাব চেলসিকে রীতিমতো বিধ্বস্ত করে দিয়ে তবেই কোয়ার্টার ফাইনালে আসে। প্রথম লেগের ম্যাচে চেলসিকে তারা ৩-০ গোলে হারানোর পর দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দেয়। বায়ার্নের প্রধান শক্তি হলেন রবার্ট লেভানদোস্কি। তিনি বুন্দেসলিগায় যেমন গোলের ফুলঝুরি ছড়িয়েছেন তেমনই চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও। এই মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এখন পর্যন্ত ১৩টি গোল করেছেন তিনি। আর ১৩টি গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকার প্রথম স্থানে রয়েছেন তিনি। আর মোটামুটি নিশ্চিতভাবে তিনি এবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে মৌসুম শেষ করবেন।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: