প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এম. সুরুজ্জামান

শেরপুর প্রতিনিধি

আব্দুল আওয়াল করোনায় মারা যাননি

   
প্রকাশিত: ২:০৮ অপরাহ্ণ, ১ এপ্রিল ২০২০

শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার দক্ষিণ পলাশীকুড়া গ্রামের আব্দুল আওয়াল (৫৫) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাননি বলে জানিয়েছেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। আজ বুধবার ( ১ এপ্রিল) দুপুরে সিভিল সার্জন কার্যালয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, নালিতাবাড়ী উপজেলার দক্ষিণ পলাশীকুড়া গ্রামের আব্দুল আওয়াল গত রবিবার (২৯ মার্চ) রাত সাড়ে নয়টার দিকে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভোগে নিজ বাড়িতে মারা যান। এতে গ্রামবাসী লক্ষণ দেখে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আওয়াল মারা গিয়ে থাকতে পারেন বলে সন্দেহ করেন। পরে পোড়াগাঁও ইউনিয়নের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি উপজেলা ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এবং প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করেন। সোমবার (৩০ মার্চ) সকালে জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার আনোয়ারুর রউফ ও তার টিম, নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফুর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভুমি) লুবনা শারমীন, ইউপি চেয়ারম্যান মো. আজাদ মিয়া, ইউপি সদস্য নুরুলহকসহ গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মৃত ব্যাক্তির শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে করোনা ভাইরাস সনাক্ত করার জন্য ঢাকার আইইডিসিআরে পাঠান। আইইডিসিআরের ল্যাবরেটরীর ১০২৮ নং আইডিতে তার সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষা করলে ফলাফল নেগেটিভ আসে। অর্থাৎ আব্দুল আওয়াল করোনা ভাইরাসে নয় জ্বর শ্বাসকষ্ট বা অন্য কোন রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরন করেছেন।

এ ব্যাপারে শেরপুরের সিভিল সার্জন ডাক্তার আনোয়ারুর রউফ বলেন, আজ বুধবার আমরা পরীক্ষার ফলাফল হাতে পেয়েছি। আব্দুল আওয়াল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান নি। তার পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। তাই ওই গ্রামের দশ বাড়ির লকডাউন তুলে নেয়া হয়েছে। এখন থেকে তারা স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারবেন।

উল্লেখ্য, স্থানীয়দের ভাষ্যমতে মৃত আব্দুল আওয়াল আগে থেকেই শ্বাসকষ্টের রোগী ছিলেন। মারা যাওয়ার ৪/৫ দিন আগে ছুটি পেয়ে বাড়িতে এলে তার অসুখ আরো বেড়ে গিয়েছিল। সে বাগেরহাট জেলার রামপাল উপজেলায় একটি পাইলিং কনস্ট্রাকশনের নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: