আমিরাতে ভিসা চালু করতে যা করতে হবে বাংলাদেশকে

   
প্রকাশিত: ৭:১৪ অপরাহ্ণ, ১৮ জানুয়ারি ২০২০

বেশ কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশিদের জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভিসা বন্ধ। ভিসা বন্ধের কারণে প্রবাসীদের সমস্যার শেষ নেই।

সরকার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে কূটনৈতিক পদ্ধতিতে। আমিরাত সরকারের কাছে বহুবার ভিসা চালুর জন্য বলা হয়েছে শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে। শ্রম এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ভিসা চালুর জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে একাধিকার বলা হয়েছে।

তবে বাংলাদেশিদের জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভিসা খুলে দেয়ার ইচ্ছে আছে দেশটির সরকারের। এর জন্য বাংলাদেশ সরকারকে কয়েকটি বিষয়ে মনযোগ দিতে হবে বলে জানিয়েছেন দুবাই ভিসা সেন্টারের চেয়ারম্যান খামিস আল নাকবি।

ভিসা খোলার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভিসা পেতে হলে বাংলাদেশ সরকারকে কয়েকটি বিষয় নিয়ে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষকে ইমিগ্রেশন খরচ কমানো, শ্রমিকদের রিক্রুটিং এজেন্সির পক্ষ থেকে এক মাসের অগ্রিম বেতন দেয়া, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট ও ফ্রি ডিপারচার সার্টিফিকেটের মতো বিষয়গুলোতে মনোযোগ দিতে হবে।’

আমিরাত সরকার খুবই আন্তরিক ভিসা খুলার বিষয়ে। তবে বাংলাদেশকে অবশ্যই এ কাজগুলো সম্পন্ন করতে হবে এবং এগুলো শ্রমিক ও দুই দেশে সরকারের জন্যই নিরাপদ বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে বাংলাদেশি ভিসা খোলার অনেক কিছুই বেশ কিছুদিন যাবত ইউএই সিস্টেমে আপডেট করা হয়েছে।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) এই বিষয়ে একটি সমঝোতা চুক্তিতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন ও আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ আব্দুল্লাহ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান স্বাক্ষর করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ১২ জানুয়ারি তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে আমিরাতে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে তিনি আবুধাবি ‘সাস্টেনিবিলিটি উইক’ ও ‘জায়েদ সাস্টেনিবিলিটি অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

এর আগে গত নভেম্বরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে রাষ্ট্রীয় সফরে যান প্রধানমন্ত্রী। সফরকালে প্রধানমন্ত্রীকে ভিসা চালুর বিষয়ে আশ্বাস দেয়া হয়েছিল বলে কয়েকটি সূত্রে জানা গেছে।

এইচ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: