প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

আশুলিয়ায় চাকরি দেয়ার প্রলোভনে তরুণীসহ ১০৪ যুবককে জিম্মি

   
প্রকাশিত: ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯

চাকরি দেয়ার নামে ঢাকা আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় একটি প্রতারক চক্র তরুণীসহ ১০৪ বেকার যুবকদের কাছ থেকে ৩০ থেকে ৬০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। কিন্তু চাকরি না দিয়ে তাদেরকে জিম্মি করে রাখে তারা। পরে খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) র‌্যাব-৪ এর অভিযানে তাদেরকে উদ্ধার করে। একইসঙ্গে ১২ প্রতারক চক্রের সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার ভূঁইয়া ন্যাশনাল প্লাজা-৩ এর দ্বিতীয় তলায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

র‌্যাব কর্মকর্তা মেজর শিবলী মোস্তফা জানান, জামগড়া এলাকায় একটি প্রতারক চক্র চাকরি দেয়ার নামে বেকার যুবকদের কাছ থেকে ৩০ থেকে ৬০ হাজার টাকা নিয়ে চাকরি না দিয়ে প্রতারণা করছে। প্রতারণার শিকার কয়েকজন এসে নবীনগর র‌্যাব-৪ এ অভিযোগ জানায়। অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার সকালে জামগড়া ভূঁইয়া ন্যাশনাল প্লাজার এনডিবি ইন্টারন্যাশনাল লি. নামক কার্যালয়ে অভিযান চালান হয়। এ সময় তালাবদ্ধ তাদের একটি অডিটোরিয়াম কক্ষ থেকে ১০৪ জন ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় আটক করা হয় প্রতারকচক্রের ১২ সদস্যকে। র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ও চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেনসহ কয়েকজন কর্মকর্তা পালিয়ে যান। জিম্মিদের নিকট থেকে এ চক্রটি তাদের রশিদের মাধ্যমে ৩৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলেও র‌্যাব জানায়। সারা দেশে এ প্রতারকচক্রের ৫০টির বেশি শাখা রয়েছে। প্রত্যেকটি শাখাই পরিচালনা করেন বিল্লাল হোসেন।

প্রতারণার শিকার উদ্ধারকৃতদের নাইম ইসলাম, শুভ দেব, সজীব আলী, আবু হানিফ, যুবাইর, দুলাল প্রমানিক, কবিতা খাতুন,শামীমা ইয়াসমিন জানান, চাকরি দেয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে ৩০ থেকে ৬০ হাজার টাকা নিয়ে চাকরি না দিয়ে ২ মাস যাবত ট্রেনিংয়ের নামে আটকে রাখে। কথামতো মাস শেষ হলেও কোনো টাকা প্রদান ও খাবার সঠিকভাবে পরিবেশন না করে তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করত। তাদের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে সহকর্মী কয়েকজন পালিয়ে গিয়ে নবীনগর র‌্যাব ক্যাম্পে বিষয়টি জানায়। এ সূত্র ধরেই র‌্যাব অভিযান চালায় এবং ১০৪ জনকে উদ্ধার করে। র‌্যাব কর্মকর্তা আরও জানান, প্রতারকচক্রের কার্যালয় থেকে এনডিবি ইন্টারন্যাশনাল লি. নামে ভুয়া এই কোম্পানির বিভিন্ন কাগজপত্র জব্দ করা হয়। এছাড়া আশুলিয়া থানাধীন ইয়ারপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ ভূঁইয়া স্বাক্ষরিত ওই কোম্পানির নামে ট্রেড লাইসেন্স জব্দ করেছে র‌্যাব। জিম্মিদশা থেকে উদ্ধারকৃতদের তাদের নিজ বাড়িতে যাতে নিরাপদে যেতে পাওে সে ব্যবস্থাও র‌্যাব করবে বলে জানান হয়। ঘটনায় ইয়ারপুর ইউপির চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ ভূঁইয়াকে র‌্যাব ক্যাম্পে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানা যায়।

এফএএস/এসএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: