উইন্ডিজকে পাত্তাই দিল না ইংল্যান্ড

   
প্রকাশিত: ১০:৩৬ অপরাহ্ণ, ১৪ জুন ২০১৯

ইনজুরির কারণে প্রথম ২৮ মিনিট ব্যাটিংয়ে নামতে পারবেন না অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যান, পাঁচ উইকেট পড়ার আগে আসতে পারবেন না ওপেনার জেসন রয়ও। অগত্যা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টোর সঙ্গে ইনিংসের সূচনা করলেন তিন নম্বরের ব্যাটসম্যান জো রুট।

ছোট লক্ষ্যের প্রতি দুর্দান্ত শুরু করে যখন সাজঘরে ফিরলেন বেয়ারস্টো, তখন যেনো মজা করার নেশা চেপে বসলো ইংলিশ টিম ম্যানেজম্যান্টের ওপর। জস বাটলার, বেন স্টোকসদের মতো স্বীকৃত ব্যাটসম্যানরা ডাগআউটে বসে থাকলেও, তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয় পেস বোলিং অলরাউন্ডার ক্রিস ওকসকে। যেনো ক্যারিবীয় বোলারদের নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলাই করা!

গ্যাব্রিয়েলের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ওকসের ব্যাট থেকে আসে ৪০ রান। তবে জো রুট চিলেন অবিচল। সেঞ্চুরি তুলে নেয়ার পাশাপাশি দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন তিনি। স্বাগতিকরা ৮ উইকেটের জয় তুলে নেয় ১৭ ওভার হাতে রেখেই।

সাউদাম্পটনে এর আগে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ওকস-আর্চারদের সামনে ঘাম ঝরেছে টপ অর্ডারের। পেসারদের দাপটে গেইল-রাসেলদের ২১২ রানেই আটকে দেয় ইংলিশরা। ২ রানে এভিন লূইসকে বোল্ড করেন ওকস। মার্ক উডের শিকার হওয়ার আগে দারুণ ফর্মে থাকা শেই হোপ করেন মাত্র ১১ রান। একটি লাইফ পেয়েও ক্রিস গেইল করেন ৩৬। ৫৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়া দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করেন নিকোলাস পুরান এবং শিমরন হিটমেয়ার। পেস সামলে উঠলেও স্পিনেই কাটা পড়েন হিটমেয়ার এবং হোল্ডার। দুজনকে ফেরান জো রুট। আন্দ্রে রাসেল ঝড়ের পূর্বাভাস দিলেও তা বেশিক্ষণ থাকেনি। ২১ রানে তিনি ক্রিস ওকসের হাতে ক্যাচ দেন, মার্ক উডের বলে। এরপরপরই দারুণ খেলতে থাকা পুরানকে ৬৩ রানে তুলে নেন জোফরে আর্চার।

শেষ দিকে কাউকেই দাঁড়াতে দেননি আর্চার। পুরান আর কটরেলকে ফিরিয়ে তো হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও জাগিয়েছিলেন। কিছুদূর যেতেই ব্রাথওয়েটকেও তুলে নেন আর্চার। আর শেনন গ্যাব্রিয়েলকে ০ রানে ক্রিস ওকস বোল্ড করে দিলে উইন্ডিজের ইনিংস গুটিয়ে যায় ২১২ রানে।

কেইআর/এসইসি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: