উকুন মারার বিষ দিয়ে ৪৮ ঘণ্টায় করোনা খতম

   
প্রকাশিত: ৮:৩০ অপরাহ্ণ, ৬ এপ্রিল ২০২০

হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের চেয়েও নাকি দ্রুত গতিতে করছে কাজ। করোনাকে রুখতে এবার ব্যবহার করা হচ্ছে উকুন মারার ওষুধ। তাতেই সাফল্য৷ মাত্র ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই নিকেশ করোনা ভাইরাস। এমনই চাঞ্চল্যকর দাবি অস্ট্রেলিয়ার গবেষকদের। করোনা ভাইরাসকে ঠেকাতে দুনিয়া জুড়ে গবেষকরা ব্যস্ত প্রতিষেধক আবিষ্কারের কাজে। আশার আলো দেখালেও এখনও স্বীকৃত কোনও করোনার প্রতিষেধক বাজারে আসেনি। এর মাঝেই অস্ট্রেলিয়ান গবেষক দলের দাবিতে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

মানুষের মাথা থেকে উকুন দূর করার ওষুধেই নাকি মিলছে করোনা থেকে মুক্তি। করোনা ভাইরাসকে ঠেকাতে দুনিয়া জুড়ে গবেষকরা ব্যস্ত প্রতিষেধক আবিষ্কারের কাজে। আশার আলো দেখালেও এখনও স্বীকৃত কোনও করোনার প্রতিষেধক বাজারে আসেনি। এর মাঝেই অস্ট্রেলিয়ান গবেষক দলের দাবিতে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মানুষের মাথা থেকে উকুন দূর করার ওষুধেই নাকি মিলছে করোনা থেকে মুক্তি। করোনা ভাইরাসকে ঠেকাতে দুনিয়া জুড়ে গবেষকরা ব্যস্ত প্রতিষেধক আবিষ্কারের কাজে।

আশার আলো দেখালেও এখনও স্বীকৃত কোনও করোনার প্রতিষেধক বাজারে আসেনি। এর মাঝেই অস্ট্রেলিয়ান গবেষক দলের দাবিতে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মানুষের মাথা থেকে উকুন দূর করার ওষুধেই নাকি মিলছে করোনা থেকে মুক্তি। আইভারমেক্টিন, অ্যান্টি প্যারাসিটিক এই ওষুধই, মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ান গবেষক দল ব্যবহার করেছেন। তাদের দাবি, এই উকুন মারার ওষুধ করোনা ভাইরাসের উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলতে সক্ষম। আইভারমেক্টিন, অ্যান্টি প্যারাসিটিক এই ওষুধই, মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ান গবেষক দল ব্যবহার করেছেন। তাদের দাবি, এই উকুন মারার ওষুধ করোনা ভাইরাসের উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলতে সক্ষম। আইভারমেক্টিন, অ্যান্টি প্যারাসিটিক এই ওষুধই, মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ান গবেষক দল ব্যবহার করেছেন। তাদের দাবি, এই উকুন মারার ওষুধ করোনা ভাইরাসের উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলতে সক্ষম।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: