‘একবার হলেও আমার বুড়ির জীবনের জন্য প্রার্থনা করুন’, এক অসহায় স্বামীর আর্তি

   
প্রকাশিত: ৬:২২ অপরাহ্ণ, ১০ মে ২০২০

করোনায় আক্রান্ত হয়ে স্ত্রী নিউইয়র্কের ব্রুক হাসপাতালে ভর্তি এমন সময়ে স্ত্রীর জন্য দোয়া চেয়ে ফেসবুকে আবেগঘন একটি স্ট্যাটাস দেন স্বামী নাজমুস সাকিব। বিডি২৪লাইভের পাঠকদের জন্য স্ট্যাটাসট হুবহু তুলে ধরা হল।

নাজমুস সাকিব লিখেছেন, “আসসালামু ওয়ালাইকুম। আমি ফেসবুকের নিয়মিত মেম্বার না। ফেসবুকের সবকিছু আমার স্ত্রীর মুখ থেকেই শুনতাম। আমরা দুইজন ২০০৫ ও ২০০৭ ব্যাচের। অনেক কষ্ট করে লাভ ম্যারেজকে এরেঞ্জ ম্যারেজে পরিণতি দিয়েছিলাম। সাত বছর প্রেম করেছি শর্ট ডিসট্যান্স ও লং ডিস্ট্যান্স দুইভাবেই। বিয়ের পর আট বছরের সংসার। সারাদিন ওর মুখে কত শুনতাম এটা না ওটা, ওটা না সেটা…। এরপর ২০১৬ সালে সংসারে নতুন অতিথি এল, আমাদের ছেলে আয়দান।

বলতে ভুলেই গেছি, এখানে সবাই আমাদের ময়মনসিংহের জামাই-বউ নামে চেনে। সময়টা ভালো যাচ্ছিল। গতবছর এইসময় দেশে একটা সারপ্রাইজ ট্রিপ দিলাম। শ্বশুরবাড়ির সবাইকে চমকে দিলাম। আর এবছর সব কেমন যেন হয়ে গেল, সব ঘোলা হয়ে যাচ্ছে, কিছুই বুঝতে পারছি না।

প্রিয় বন্ধুরা, আজকে বুড়ি (তমা বলে ডাকলে রাগ করে) আর আমাদের জীবনটা কেমন ঘন কুয়াশায় ঢেকে গেছে। অনেকেই আমাদের জন্য দোয়া করেছেন, তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। বুড়ি একা একাই নিজের জীবন বাঁচাতে লড়ে যাচ্ছে। ডাক্তাররা সম্ভাব্য সব চিকিৎসাই দিচ্ছেন। বুড়ি লং আইল্যান্ডের ব্রুক হাসপাতালে ভর্তি আছে। ওর জন্য দোয়া করবেন। যে যেই ধর্মেরই হোন না কেন, একবার হলেও আমার বুড়ির জীবনের জন্য প্রার্থনা করবেন। আমি আর আমার ছেলে সুস্থ আছি কিন্তু ভালো নেই। আল্লাহ আমাদের শক্তি দিন।”

উল্লেখ্য, নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের একটি হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত অবস্থায় মারা গেছেন নাজমুস সাকিবের স্ত্রী তাসনিম নাওয়ার তমা। তাসনিম নাওয়ার তমার স্বামীর নাম নাজমুস সাকিব। সাত বছর প্রেম করার পর ২০১২ সালে বিয়ে করেছিলেন তাঁরা। কোলজুড়ে আসে ফুটফুটে শিশু আয়দান। যেন স্বপ্নের মতো জীবন চলছিল তাঁদের। করোনার কারণে এখন সেই স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে।

ছেলেকে নিয়ে নাজমুস সাকিব ও তাসমিন নাওয়ার তমা থাকতেন লং আইল্যান্ড কাউন্টিতে। তমার বাড়ি ময়মনসিংহে। গত ২৮ দিন আগে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হন তমা। তখন থেকেই হাসপাতালে ছিলেন তিনি। অবশেষে ২৮ দিন যুদ্ধ করে করোনার কাছে হেরে গেলেন তমা। স্ত্রীর মৃত্যুর খবর দিতে গিয়ে স্বামী নাজমুস সাকিব কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমার ছেলেটা এতিম হয়ে গেল, আমার ছেলের জন্য সবাই দোয়া করবেন।’

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: