প্রচ্ছদ / বাকৃবি / বিস্তারিত

শাহরিয়ার আমিন

বাকৃবি প্রতিনিধি

এবার বাকৃবি ডিনের পদত্যাগের দাবিতে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম

   
প্রকাশিত: ৭:২৫ অপরাহ্ণ, ১১ নভেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মানোন্নয়ন, অ্যাম্বুলেন্স সংখ্যা বাড়ানো ও পরীক্ষা পেছানোকে কেন্দ্র করে ডীন অফিসে বিশৃঙ্খলাকারীদের শাস্তি প্রত্যাহারসহ নয় দফা দাবিতে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করেছে ভেটেরিনারি অনুষদের শিক্ষার্থীরা। এসময় ভেটেরিনারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. নাজিম আহমাদের পদত্যাগের দাবিতে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে আন্দোলনকারীরা। এছাড়াও মঙ্গলবার ক্লাস পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন তারা।

সোমবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনের সামনে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করেন ওই শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার রাত ৯ টার দিকে ভেটেরিনারি অনুষদের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও মালয়েশিয়ার নাগরিক হারানি জানাকি রামান শ্বাসকষ্টে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সের জন্য ফোন করলে সেটি না পাওয়া যায় নি। ওই সময় অ্যাম্বুলেন্সটি অন্য রোগীকে নিয়ে ক্যাম্পাসের বাইরে অবস্থান করছিল। হারানির বন্ধুরা তাকে অটোরিক্সায় করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে রাত ১ টা ১৫ মিনিটে হারানি মারা যান। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম রোকেয়া হলে থাকতেন।

সময়মত অ্যাম্বুলেন্স না পাওয়া এবং বেগম রোকেয়া হলের প্রভোস্ট ও হাউজ টিউটরদের অবহেলার অভিযোগ এনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তারা বলেন, স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মান এতটাই বাজে যে আমরা প্রাথমিক চিকিৎসাও ঠিকমত পাচ্ছি না। এছাড়াও সাত হাজারের বেশী শিক্ষার্থীর জন্য একটা অ্যাম্বুলেন্স মেনে নেয়া যায় না। স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা আমাদের সেবা না দিয়ে বিসিএস পড়েন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মাঝে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান উপস্থিত হয়ে স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মানোন্নয়ন, অ্যাম্বুলেন্স সংখ্যা বাড়ানো ও চিকিৎসা সংক্রান্ত দাবিগুলো মেনে নেন। পরে শিক্ষার্থীরা উপাচার্যকে বলেন, ভেটেরিনারি অনুষদের ডিন শিক্ষার্থীবান্ধব নন। বিভিন্ন সময়ে শিক্ষার্থীদের হয়রানি করেছেন। অনৈতিকভাবে শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে শান্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছেন। এসময় তারা ডিনের পদত্যাগ দাবি করেন।

জানা যায়, ভেটেরিনারি অনুষদের জানু/জুন-২০১৯ স্মাতক ফাইনাল পরীক্ষা পেছানোকে কেন্দ্র করে কয়েকজন শিক্ষার্থী ডিন অফিসে বিশৃঙ্খলা করায় বিশ^বিদ্যালয়ের বোর্ড অব রেসিডেন্স এন্ড ডিসিপ্লিন কমিটির সভায় ১৫ জন শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন শাস্তি প্রদান করা হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষক বলেন, হারানির মৃত্যুকে ইস্যু করে ওই শিক্ষার্থীরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের বিভিন্নভাবে উসকে দিয়ে ডিনের পদত্যাগ দাবি করছেন। আর এই কারণেই শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নেমেছেন।

ভেটেরিনারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. নাজিম আহমাদ বলেন, শিক্ষার্থীরা কেন পদত্যাগ চাচ্ছে তা আমার বোধগম্য নয়। শাস্তিমূলক কারণ ছাড়া কারো বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: