প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: দিরাইয়ে রবিউলের বাড়িতে অভিযান

   
প্রকাশিত: ৮:৫৬ অপরাহ্ণ, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা রবিউল ইসলামের গ্রামের বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে দিরাই থানা পুলিশ। শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) অভিযুক্ত রবিউল গ্রামের বাড়িতে এসেছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রামের বাড়ি দিরাই থানার জগদল ইউনিয়নের বড় নগদীপুর গ্রামে একটি সাড়াশি অভিযান চালানো হয়। এই রিপোর্টটি লেখা পর্যন্ত অভিযান চলমান আছে বলে জানিয়েছেন দিরাই থানার ওসি আশরাফুল ইসলাম।

এ বিষয়ে ওসি আশরাফুল ইসলাম বলেন, ধর্ষণে অভিযুক্ত রবিউলের ন্যক্কারজনক বিষয়টি আমলে নিয়ে তাকে গ্রেফতারে চেষ্টা করছি। এদিকে অভিযুক্ত রবিউলের এমন ন্যক্কারজনক ঘটনা শোনার পরই তার এলাকায় এ নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। উঠেছে নিন্দার ঝড়। বিশেষ করে জগদল ইউনিয়নের লোকজন রীতিমতো ফুঁসে উঠেছেন।

এসময় তারা বলেন, আজকের ঘটনাটি ছাড়াও রবিউলের বিরুদ্ধে আরও অনেক অভিযোগ রয়েছে। তার দ্বারা বিভিন্ন সময়েই এলাকার মানুষ নির্যাতনের শিকার হয়েছে। এই অপরাধীর জন্য এলাকাবাসী লজ্জিত। এ সময় তারা রবিউলকে এলাকায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করার দাবি জানান।

এ সম্পর্কে জগদল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শিবলী আহমেদ বেগ বলেন, এই ন্যক্কারজনক খবরটি শোনার পর থেকেই তার গ্রামসহ ইউনিয়নবাসী ক্ষোভে, নিন্দায় ফুঁসে উঠেছেন। তার শাস্তির দাবি করছেন। এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। এ ঘটনায় জড়িত যেই হোক তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা উচিত।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে গণধর্ষণ করেছে মহানগর ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। অভিযুক্ত এসব কর্মীরা সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক রণজিৎ সরকারের অনুসারী বলে জানা গেছে।

এদিকে তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় ৬ জনকে আসামি করে এসএমপির শাহপরাণ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নির্যাতিত ওই তরুণীর স্বামী মাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলো- এমসি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সাইফুর, শাহ রনি, অর্জুন, মাহফুজ, রবিউল ও তারেক।

এদিকে সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুরের রুম থেকে দেশি-বিদেশি অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালে পুলিশ বাদী হয়ে সাইফুরকে আসামি করে অস্ত্র আইনে এ মামলা দায়ের করে। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহপরান (রহ.) থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শুক্রবার দিবাগত রাত ২ টার দিকে হোস্টেলে অভিযান চালিয়ে দেশি-বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার করে। অভিযানে একটি বিদেশি পিস্তল, চারটি রামদা, দুটি লোহার পাইপ উদ্ধার করা হয়।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: