করোনার ঝুঁকি নিরসনে ঢাবি খোলার পর ‘গণরুম’ বন্ধ!

   
প্রকাশিত: ৮:৩৪ অপরাহ্ণ, ২৯ এপ্রিল ২০২০

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি নিরসনে এবং আবাসিক হলের শিক্ষা ও জীবনমানসহ সামগ্রিক পরিবেশ উন্নয়নের লক্ষ্যে হল প্রশাসন তিনটি নতুন উদ্যোগ বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। হল প্রশাসনসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মনে করেন, এই সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়ন করলে কথিত ‘গণরুমের’ অবসান হবে। মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে প্রভোস্ট কমিটির এক সভা অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে এসব বিষয়ে আলোচনা এবং সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়। বুধবার (২৯ এপ্রিল) ঢাবির জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক মাহমুদ আলমের পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রভোস্ট কমিটির সভায় শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি নিরসনে এবং আবাসিক হলের শিক্ষা ও জীবনমানসহ সামগ্রিক পরিবেশ উন্নয়নের লক্ষ্যে হল প্রশাসন কয়েকটি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এসব সিদ্ধান্তের মধ্যে রয়েছে— বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর শুধুমাত্র বৈধ শিক্ষার্থীরা সংশ্লিষ্ট হলের নীতিমালার আলোকে হলে অবস্থান করবে। যাদের ছাত্রত্ব নেই তারা কোনোভাবেই হলে অবস্থান করতে পারবে না। হল প্রশাসনের দেওয়া সময়ের মধ্যে তাদেরকে ব্যক্তিগত জিনিসপত্র নিয়ে সংশ্লিষ্ট কক্ষ/সিট ছেড়ে দিতে হবে। তীব্র আবাসন সংকট নিরসনে এর বিকল্প নেই।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হলের কোনও কক্ষের মেঝেতে কোনও শিক্ষার্থী অবস্থান করতে পারবে না। প্রয়োজনে যথাযথ নিয়মে ডাবলিং করতে পারবে। যেসব কক্ষে খাট/বেড নাই ছুটিকালীন সময়ে হল প্রশাসন সেসব কক্ষে নিয়মমাফিক খাট/বেড সরবরাহ করার ব্যবস্থা নেবে।

সভায় অভিমত ব্যক্ত করা হয় যে, সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়িত হলে দীর্ঘদিনের গড়ে ওঠা কথিত ‘গণরুমের’ অবসান ঘটবে। তবে এই ‘গণরুমের’ অবসান ও ‘যাদের ছাত্রত্ব নেই তাদের হলে অবস্থান না করার’ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠনগুলোর আন্তরিক সহযোগিতা অত্যাবশ্যক বলেও সভায় অভিমত ব্যক্ত করা হয়। এছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয় ছুটিকালীন সময়ের মধ্যে হল প্রশাসন হলের সংস্কার ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ সম্পন্ন করবে বলেও সিদ্ধান্ত হয়।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: