প্রচ্ছদ / অন্যান্য... / বিস্তারিত

করোনায় ইতিহাস হয়ে থাকবে যেসব দৃশ্য

   
প্রকাশিত: ১১:৩৯ অপরাহ্ণ, ২৮ মার্চ ২০২০

করোনার কারণে বিশ্ব এখন ফাঁকা। জনমানুষ শূন্য অনেক লোকারন্য স্থানও। এসব জায়গা হয়ত কেউ কখনই এর আগে এমন দেখেনি। সেসব জায়গাই এখন জনমানবহীন। কোথাও কেউ নেই। নেই ছবি তোলার হিড়িক বা ধর্মীয় স্থানগুলোতে সমবেত হয়ে সৃষ্টিকর্তার নিকট প্রার্থনা করার দৃশ্যগুলো। এই স্থানগুলোর এমন রূপ ইতিহাস হয়ে থাকবে। তেমনই কয়েকটি ছবি নিয়ে এ প্রতিবেদন-

১. কাবা শরীফ
মুসলিমদের কেবলা সৌদি আরবের মক্কায় অবস্থিত পবিত্র কাবা শরীফ। প্রতিদিন বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে হাজার হাজার মুসলিম সেখানে ওমরাহ হজ পালন করতে বা সৃষ্টিকর্তার ঘর দেখতে হাজির হন। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে গোটা সৌদি লকডাউন এবং মসজিদ বন্ধ করে দেয়ার কারণে কাবার চারপাশ এখন জনশূন্য।

২. ভ্যাটিকান সিটি
রোমান ক্যাথলিক গির্জার বিশ্ব সদর দপ্তর হিসেবে কাজ করে ভ্যাটিকান সিটি। ইতালির রোম শহরের ভেতরে অবস্থিত স্বাধীন এই রাষ্ট্রের প্রধান পোপ ফ্রান্সিস। হাজার হাজার মানুষ নিয়মিত জড়ো হন তার ধর্মীয় উপদেশ শুনতে। কিন্তু করোনার জেরে সেটি এখন জনশূন্য। সম্প্রতি পোপ এ নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেন এবং নিজেই রাস্তায় কিছুক্ষণ হাঁটেন।

৩. প্যারিসের আইফেল টাওয়ার
বিশ্বের মানুষের ভ্রমণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু ইউরোপ। আর ফ্রান্সের আইফেল টাওয়ার ইউরোপের জনপ্রিয় স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম। প্রতিটি মুহূর্তে টাওয়ারের আশপাশে মানুষের বিচরণ থাকে। ছবি তোলায় ব্যস্ত থাকেন পর্যটকরা। কিন্তু করোনাভাইরাস সবকিছু ওলটপালট করে দিয়েছে। এখন আইফেল টাওয়ারের চারিদিক খাঁ খাঁ করছে।

৪. চীনের ওভারপাস
চীনের অন্যতম ব্যস্ত রাস্তাগুলোর একটি এটি। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউন থাকায় এবং কড়াকড়ি আরোপ করায় অন্যতম ব্যস্ত এই ওভারপাসকে ভৌতিক দেখাচ্ছে।

৫. তাজমহল
ভারতের আগ্রায় অবস্থিত মোঘল সম্রাট শাজাহান নির্মিত তাজমহল। বিশেষ কোনো কারণে বন্ধ না থাকলে পর্যটকদের ভিড় লেগেই থাকে সেখানে। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে ভারতজুড়ে লকডাউন চলায় এখন পর্যটকশূন্য তাজমহল।

৬. কারাগার নাকি ঘর?
প্রতিটি জানালায় মানুষ। মনে হচ্ছে তাদেরকে যেন কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছে। বাস্তবে তারা নিজের ইচ্ছায় করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে ঘরে বন্দি হয়ে রয়েছেন। ছবিটি ব্রাজিলের সাও পাওলোর একটি এপার্টমেন্ট ভবনের।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: