প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

খায়রুল আলম রফিক

বিশেষ প্রতিনিধি

করোনা মোকাবিলায় মানবিকতার কাজ করছে পুলিশ

   
প্রকাশিত: ৮:৫৯ অপরাহ্ণ, ২৮ মার্চ ২০২০

করোনা পরিস্থিতিতে ময়মনসিংহে রেঞ্জের জেলা পুলিশ অনেক ভাল কাজ করছে। অসুস্থ্যদের হাসপাতালে পৌঁছে দিচ্ছেন। রোগীদের ওষুধের ব্যবস্থা করছেন। এমন মানবিক কাজ আরও করছেন তারা। এরই মাঝে যুক্ত হয়েছে, করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে চাল, তেলসহ খাবার বিতরণ, পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের পিপিই পোশাক, স্যানিটাইজসহ বিভিন্ন উপকরণ রেঞ্জ ও জেলা পুলিশের উদ্যোগে সরবরাহ করা হচ্ছে। ফলে সঙ্কট কাটছে। ময়মনসিংহ রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদ, বিপিএম এই মানবিক কাজে নির্দেশনা দিচ্ছেন। বাস্তবায়ন করছেন, ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামান, পিপিএম-সেবা এর মাধ্যমে জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি পুলিশ। করোনা সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে যেতে না পারে সে জন্য মানুষকে বাড়িতে থাকার আহবান জানিয়েছেন ময়মনসিংহ রেঞ্জ ও জেলা পুলিশের শীর্ষ এই কর্মকর্তা।

ইতিমধ্যে ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজির নির্দেশনায় জেলা পুলিশের সহযোগীতায় জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি পুলিশের মাধ্যমে নগরের বিভিন্ন স্থানে হত দরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য বিতরণ করা হয়েছে। ময়মনসিংহের পুলিশ কর্মকর্তাগণ খাদ্য সামগ্রী ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সামগ্রী তুলে দেন এলাকার দুঃস্থ বাসিন্দাদের হাতে।

পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি), ময়মনসিংহের কার্যকরি পদক্ষেপ ও সচেতন করতে এবার ছুটছে গ্রামগঞ্জে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ যুদ্ধে শহর,নগরে অবাধ বিচরণ রোধে ময়মনসিংহে সফলতা অর্জন করেছে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ ও প্রশাসনের বিভিন্ন সংস্থা। এক্ষেত্রে টার্গেট ছিলো বিদেশ ফেরত ভাই বোনদের কন্ট্রোলে রাখা। সরকারি ছুটি, কলকারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এবার রাজধানীর ঢাকা থেকে আগতদের অযথা বিচরণ সংকুচিত রাখতে গ্রামগঞ্জে ছুটছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

গ্রামে বসবাসকারি জনগণকে সচেতন করতে দেয়া হচ্ছে যথাসম্ভব ঘরে থাকার নির্দেশনা। একে অন্যের সাথে দূরত্ব বজায় রেখে সকল প্রয়োজন সম্পন্ন করে বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিচ্ছে তারা। গ্রামেও নিয়ম অনুযায়ী নিত্যপন্য ও ওষুধের দোকানগুলোতে দেয়া হচ্ছে দুরত্ব চিহ্ন। অযথা হাট বাজারে আড্ডা দেয়া থেকে বিরত থাকার ঘোষনা দেয়া হচ্ছে।

করোনা কি? প্রতিরোধে করণীয়, পরিচ্ছন্নতায় সাবান পানি দিয়ে হাত ধোঁয়ার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে, দেয়া হচ্ছে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার। সচেতন ও বিশেষজ্ঞদের মতে এটি দ্বিতীয় ফেইজ। এ ধাপে সফল হলেই করোনার আক্রমণ আমাদের ক্ষতিগ্রস্থকরতে পারবেনা।

বিশ্বের উন্নত দেশগুলো যখন করোনার তান্ডবে নাজেহাল বাংলাদেশ তথা ময়মনসিংহের পুলিশ প্রশাসন, জেলা প্রশাসন, দায়িত্বশীলদের সমন্বিত পদক্ষেপ ও জনগণের সহযোগিতায় নেয়া হয়েছে জোরদারর প্রতিরোধ। আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ আমাদের একটি ভাই, একটি বোনকে করোনার ভয়াল থাবায় আক্রান্ত হতে দিবো না।

গত ২৭ মার্চ ডিআইজি, ময়মনসিংহ রেঞ্জ, মোহাঃ আহমার উজ্জামান, পিপিএম-সেবা, পুলিশ সুপার, ময়মনসিংহ, এর উদ্যোগে পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং মাস্ক, সাবান বিতরণ করা হয়।

২৭ মার্চ শুক্রবার পুলিশ লাইন্স ২নং গেইট সংলগ্ন (কাটাখালী) এলাকায় বসবাসরত ১শ ২০ জন পরিচ্ছন্নতা কর্মীর মাঝে এ সহায়তা সামগ্রী বিতরণ করা হয়। বিশ্বব্যাপী প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমনে বাংলাদেশেও চলছে সর্তকাবস্থা। এ অবস্থায় সমাজের নিম্নবিত্তের জীবন যাপনের কথা চিন্তা করে খাদ্যসামগ্রী, জীবানুনাশক, সাবান, মাস্ক বিতরণ করে ময়মনসিংহ রেঞ্জ ও জেলা পুলিশ। সহায়তা সামগ্রীর প্রতিটি প্যাকেটে ৪ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ বোতল লিকুইড হ্যান্ড স্যানিটাইজার, একটি ডেটল সাবান ও ২ টি মাস্ক দেয়া হয়।

ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামান জানান, ডিআইজি স্যারের ও আমার ব্যাক্তিগত ফান্ড থেকে এ কর্মসূচী চালু করেছি। তা অব্যাহত থাকবে।

ময়মনসিংহ রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদ জানান, আমাদের নিজেদের ফান্ড থেকে এই কর্মসূচী চালু করেছি। রেঞ্জের আওতায় প্রত্যেক হত দরিদ্রদের খুঁজে বের করে খাবার ও সহযোগীতা পোঁছে দেয়া হবে। যা ময়মনসিংহ জেলা থেকে এই কর্মসূচীর কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: