প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

কাশ্মীরে নিজে গুলি খেয়ে নাতিকে বাঁচালো নানা

   
প্রকাশিত: ১০:৩৯ পূর্বাহ্ণ, ২ জুলাই ২০২০

ভারতের জম্মু ও কাশ্মীরের সোপোর শহরে বুধবার সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স (সিআরপিএফ)-এর সৈনিকদের সাথে সন্ত্রাসীদের গুলি বিনিময়ের মাঝে পড়ে যায় একটি গাড়ি। তাতে সেই গাড়ির একজন মারা গেলেও প্রাণে বেঁচে যায় তাঁর তিন বছরের নাতি। জম্মু এবং কাশ্মীরের সোপর নামক স্থানে বুধবার (১ জুলাই) সকালে এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

এছাড়া ওই জঙ্গি হামলার নিহত হন এক স্থানীয় বাসিন্দাও। যখন ওই জঙ্গি হামলা চলছিল তখনই শ্রীনগর থেকে হান্দোয়াড়া যাওয়ার জন্যে ওই পথ দিয়ে নাতিকে সঙ্গে নিয়ে একটি চার চাকার গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিলেন ওই ব্যক্তি। কিন্তু শ্রীনগর থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরে বারমুল্লা জেলার সোপরেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি। তার সঙ্গে থাকা মাত্র বছর তিনেক বয়সের নাতিটি বুঝতেই পারে না হঠাৎ কী হলো তার দাদার। রক্তে মাখামাখি দাদার শরীর ধরেই টানাটানি শুরু করে সে। ঘটনাস্থলে সবার আগে পৌঁছান সোপোর এলাকার এসএইচও আজিম খান। তিনি বলেন, সকাল ৮টা নাগাদ আমরা খবর পাই ওই এলাকায় তখন ব্যাপক ভিড় ছিল। প্রচুর গাড়ি চলে ওই রাস্তা দিয়ে। স্বাধীনতাকামীরা উঁচুতে থাকা একটি মসজিদের ওপরের দিকে থেকে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়তে শুরু করে। তিনি আরো জানান, আমাদের তিনজন জওয়ান আহত হয়। সেই সময় ওই বৃদ্ধ গুলিবিদ্ধ হন। তারপরই আমরা দেখতে পাই এক শিশু ওই বৃদ্ধের মৃতদেহের পাশে ঘুরছে। আমরা তখনই ওকে বাঁচানোর জন্য ঝাঁপিয়ে পড়ি। স্বাধীনতাকামীরা তখনো গুলি ছুড়ে যাচ্ছিল। শিশুটিকে ওখান থেকে বের করে আনা আমাদের কাছে চ্যালেঞ্জিং ছিল। কিন্তু আমরা যে করেই হোক ওকে বাঁচাবো বলে ঠিক করি।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: