প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এস হোসেন আকাশ

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জের গরুর হাটে জাল নোট চক্রের অপতৎপরতা ঠেকাতে মাঠে র‌্যাব

   
প্রকাশিত: ৯:১৩ পূর্বাহ্ণ, ৩১ জুলাই ২০২০

রাত পোহালেই মুসলিমদের ২য় বৃহৎ উৎসব ঈদ-উল-আযহা (কোরবানির ঈদ)। আর এই ঈদকে সামনে রেখে কিশোরগঞ্জের সাধারণ জনগন যাতে করে নির্বিঘ্নে পশু ক্রয়-বিক্রয় করতে পারে সে জন্য র‌্যাব সদা সজাগ রয়েছে। জাল নোট চক্রের অপতৎপরতা ঠেকাতে মাঠে কাজ করছেন র‌্যাব-১৪, সিপিসি-৩, ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা। নিরাপত্তা প্রদানে এবং জাল নোট তৈরি ও বাজারজাতরোধে মাঠে তৎপর রয়েছেন তারা। এজন্য র‌্যাব-১৪, সিপিসি-৩, ভৈরব ক্যাম্পের একাধিক টহল টিম ও গোয়েন্দা টিম নিরাপত্তার পাশাপাশি জেলার পশুর হাটগুলোতে জাল নোট সনাক্তকরণ মেশিনের মাধ্যমে ক্রেতা-বিক্রেতাকে সহায়তা প্রদান করছে। নিরাপত্তা প্রদানে সাদা পোশাকে এবং ইউনিফর্মে শতাধিক র‌্যাব সদস্য নিয়োজিত রয়েছে।

প্রতি বছর দুই ঈদে জাল নোট চক্র সক্রিয় হয়ে উঠে। সারাদেশে প্রতারণার জাল বিস্তার করে তারা। তাই এবারের কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে জাল নোট চক্রের অপতৎপরতা ঠেকাতে মাঠে তৎপর রয়েছেন র‌্যাব-১৪, সিপিসি-৩, ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা।কিশোরগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে পশুর হাটগুলোতে জাল নোট ব্যবসায়ীদের অপতৎপরতা ঠেকাতে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জাল নোট চিহ্নিতকরণে বুথ বসানো হয়েছে।

জাল নোট চক্র যাতে বাজারে কোনভাবেই জাল নোট ছড়াতে না পারে সে জন্য কড়া নজরদারি রয়েছে। প্রতিটি পশুরহাটে র‌্যাবের নজরদারি রয়েছে। জাল নোট সনাক্তকারী মেশিনের সহায়তায় র‌্যাব সদস্যরা বিভিন্ন পশুর হাটে ঈদের পূর্বরাত পর্যন্ত পশু ক্রেতা-বিক্রেতাদের বিনা খরচে নোট যাচাই সংক্রান্ত সেবা প্রদান করবেন।

এ ব্যাপারে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-৩, ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের বলেন, জাল নোট চক্রকে ধরতে আমরা সচেষ্ট রয়েছি। এ সংক্রান্ত যে কোন তথ্য দেয়ার জন্য সচেতন নাগরিকদের অনুরোধ করা গেলো এবং কেহ যাতে প্রতারিত না হন তার জন্য সতর্ক থাকার আহ্বান করা হলো। জাল নোট চক্রকে ঠেকাতে এবং পশু ক্রয়-বিক্রয়ে কোন ধরনের সমস্যা যাতে না হয় তার জন্য র‌্যাবের গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: