কোরবানির পশুর চামড়া খাওয়া যাবেকি ?

   
প্রকাশিত: ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ, ১৪ আগস্ট ২০১৯

ইসলামে সাধারণত গৃহপালিত এবং কোরবানির পশুর (ছাগল, গরু, মহিষ) ইত্যাদি মাংস খাওয়া মুসলমানদের জন্য হালাল করা হয়েছে। কিন্তু এই হালাল পশুর বেলাতেও কিছু বাধ্যবাধকতা রয়েছে। আল্লাহ তায়ালা হালাল পশুর ৭টি অঙ্গ খাওয়া মুসলমানদের জন্য হারাম করেছে। যেমন-

গরুর নাড়ি তথা রগ খাওয়া জায়েজ নয়। তবে ভুরি খাওয়া জায়েজ আছে। তবে ময়লা থেকে পরিস্কার করে নেয়া আবশ্যক। আবার, মুরগীর নাড়ি থাকে, কিন্তু ভুরি বলতে কিছু থাকে কি না? আমাদের জানা নেই।

হালাল পশুর যে ৭টি অঙ্গ হারাম সেগুলো হলো: প্রবাহিত রক্ত, নর প্রাণীর পুং লিঙ্গ, অন্ডকোষ, মাদী প্রাণীর স্ত্রী লিঙ্গ, মাংসগ্রন্থি, মুত্রথলি, পিত্ত। এছাড়া বাকি সবই খাওয়া জায়েজ।

সুতরাং, যবহকৃত হালাল পশুর প্রবাহিত রক্ত ব্যতীত সবই হালাল (আন‘আম ১৪৫)। হানাফী কিতাব সমূহে আরো ছয়টি বস্ত্ত হারাম বলে উল্লেখ আছে। কিন্তু সেগুলি সব ক্বিয়াসী বা অনুমান নির্ভর। সুতরাং হালাল পশুর চামড়া যদি কেউ খেতে চায়, খেতে পারে। তবে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর সবকিছু থেকে বিরত থাকতে হবে। কেননা রাসূল (ছাঃ) বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত হয়ো না এবং ক্ষতি করো না (ইবনু মাজাহ হা/২৩৪০; ছহীহাহ হা/২৫০)। কেননা এতে খাদ্য গ্রহণের লক্ষ্য ব্যাহত হয় (ফৎহুল ক্বাদীর বাক্বারাহ ১৬৮; মায়েদাহ ৮৮; আনফাল ৬৯; নামল ১১৪)।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: