প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

গণস্বাস্থ্যের কিট প্রস্তুত, কম খরচে মিনিটেই শনাক্ত হবে

   
প্রকাশিত: ৯:৫১ অপরাহ্ণ, ৯ এপ্রিল ২০২০

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনা ভাইরাস শনাক্তের কিট তৈরির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে পৌঁছেছে। এ কিট দিয়ে মাত্র পাঁচ মিনিট থেকে ১৫ মিনিটে রোগী শনাক্ত করা যাবে। এতে খরচ পড়বে মাত্র ৩০০ টাকা। বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) বিকেলে গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানান গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, আগামী ১১ এপ্রিলের মধ্যে কিছু নমুনা কিট আমরা সরকারের কাছে হস্তান্তর করতে পারব। জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, গত ৭ এপ্রিল ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা গণস্বাস্থ্যের ল্যাব পরিদর্শন করেছেন। এরপর রাতে করোনায় আক্রান্ত পাঁচজনের রক্তের নমুনা সরকার দিয়েছে। সেগুলো নিয়ে এখন গবেষণা চলছে। ১১ এপ্রিল সরকারকে কিছু নমুনা কিট সরবরাহ করা হবে।

ডা. জাফরুল্লাহ আরো বলেন, ‘রক্তের নমুনা পাওয়ায় গণস্বাস্থ্য র‍্যাপিড ডটব্লট (জি র‍্যাপিড ডটব্লট) কিট তৈরির কাজ প্রায় শেষের দিকে। এই কিটের নমুনা সরকারের পাশাপাশি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও-হু) ও অন্য সংস্থাগুলোকে দেওয়া হবে, যাতে সবাই এটির কার্যকারিতা পরীক্ষা করতে পারে।

এর আগে গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে করোনাভাইরাস ধরা পড়ার পর এ নিয়ে কিট তৈরির ঘোষণা দেয় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। পরে গত ১৮ মার্চ গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে সরকারের ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে কিটের জন্য প্রয়োজনীয় উপাদান বা রি-এজেন্ট আমদানির অনুমতি চায়। ১৯ মার্চ দুপুরে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে কিট তৈরির উপাদান আমদানির অনুমতি দেয় সরকার। গত ৫ এপ্রিল গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনাভাইরাস শনাক্তের পরীক্ষার জন্য কিট তৈরির উপাদান বা রি-এজেন্ট চীন থেকে দেশে পৌঁছায়।

এ বিষয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, কিট তৈরির সব প্রস্তুতি আগে থেকে নেওয়া ছিল। কিট তৈরির উপাদানের জন্য অপেক্ষায় ছিলেন তাঁরা। তিনি বলেন, ‘বর্তমানে করোনাভাইরাস শনাক্তে ব্যবহৃত পিসিআর পদ্ধতিটি ব্যয়বহুল। পিসিআর পদ্ধতিতে নাক, মুখের লালা দিয়ে পরীক্ষা করা হয়। তবে এই পদ্ধতিতে করোনা আক্রান্তের প্রথম দিনেই রোগ শনাক্ত করা সম্ভব। আর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কিটে এক ফোঁটা রক্তের মাধ্যমে পরীক্ষা করা হবে। এর জন্য আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে যথেষ্ট অ্যান্টিবডি তৈরি হতে হয়। ফলে গণস্বাস্থ্যের কিটে পরীক্ষাটি আক্রান্ত হওয়ার তৃতীয় দিনে কার্যকর হবে।’ জাফরুল্লাহ বলেন, গণস্বাস্থ্যের কিটের মাধ্যমে পাঁচ থেকে ১৫ মিনিটের মধ্যে অত্যন্ত স্বল্পমূল্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা যাবে। খরচ পড়বে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: