গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনার বিস্তারিত পরিসংখ্যান

   
প্রকাশিত: ৩:২০ অপরাহ্ণ, ২২ এপ্রিল ২০২০

প্রাণঘাতী করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল মোট ১২০ জন। এছাড়া একদিনে দেশে এই মরণব্যধিতে আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৩৯০ জন। এতে সর্বমোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৭৭২ জন। বুধবার (২২ এপ্রিল) বিকালে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) নাসিমা সুলতানা।

তিনি বলেন, ‘২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩ হাজার ৯২ টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আগেরও কিছু নমুনা আমাদের ছিল। সব মিলিয়ে ৩ হাজার ৯৬ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। যেটার হার গতকালের চেয়ে ৪ দশমিক ১ শতাংশ বেশি।’ এছাড়াও গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সুস্থ হয়েছেন আরও ৫ জন। এ পর্যন্ত মোট ৯২ জন সুস্থ হয়েছেন বলেও জানান এই চিকিৎসক। নাসিমা সুলতানা বলেন, ‘এ রোগে আক্রান্তদের সুস্থ হতে দীর্ঘ সময় লেগে যায়। অনেক সময় উপসর্গ ও লক্ষণ নিয়েই তারা ১৪-১৫ দিন থাকেন, তারপর লক্ষণ কিংবা উপসর্গ কমতে শুরু করে।

অর্থাৎ আক্রান্ত হওয়ার পর একজন রোগীকে সম্পূর্ণ সুস্থ হতে মাসখানেক সময় লেগে যায়। তাই সুস্থের সংখ্যা কম মনে হতে পারে। একজন ব্যক্তিকে আমরা তখনই সম্পূর্ণ সুস্থ বলবো, যখন তার পরপর দুটি পরীক্ষায় নেগেটিভ আসবে।’ মৃত ১০ জনের বিবরণ দিয়ে তিনি বলেন, মৃতের মধ্যে পুরুষ ৭ জন, আর নারী ৩। আর মৃতদের ৭ জন ঢাকার ভেতরে, বাকিরা বিভিন্ন এলাকার। ঢাকার বাইরের তিন জন হলেন ময়মনসিংহ, নারায়ণগঞ্জ ও টাঙ্গাইলের। মৃত ব্যক্তিদের বিবরণে তিনি জানান, ‘বয়সের বিশ্লেষণে তাদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব তিনজন, ৫১-৬০ বছর বয়সী দুজন, ৪১-৫০ বছরের তিনজন ও ২১-৩০ বছর বয়সী দুজন মারা গেছেন।’

বিশ্ব পরিস্থিতি: ওয়ার্ল্ডোসিটারের তথ্য অনুয়ায়ী, বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ লাখ ৫৬ হাজার ৯০৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৭৫ হাজার ২৪৫ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ৬ লাখ ৯০ হাজার ২৬৫ জন। বর্তমানে বিশ্বে ১৬ লাখ ৮৮ হাজার ৬৫০ জনের দেহে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে ১৬ লাখ ৩১ হাজার ৪০০ জন চিকিৎসাধীন, যাদের অবস্থা স্থিতিশীল। আর ৫৭ হাজার ২৫০ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিইউতে রয়েছেন। বর্তমানে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৮ লাখ ১৮ হাজার ৭৪৪, মারা গেছে ৪৫ হাজার ৩১৮ জন। এখন পর্যন্ত করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যু এবং আক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রে। এছাড়া স্পেনে আক্রান্ত ২ লাখ ৪ হাজার ১৭৮, মারা গেছে ২১ হাজার ২৮২ জন। ইতালিতে আক্রান্ত ১ লাখ ৮৩ হাজার ৯৫৭, মারা গেছে ২৪ হাজার ৬৪৮ জন। ফ্রান্সে আক্রান্ত ১ লাখ ৫৮ হাজার ৫০, মারা গেছে ২০ হাজার ৭৯৬ জন। জার্মানিতে আক্রান্ত ১ লাখ ৪৮ হাজার ৪৫৩, মারা গেছে ৫ হাজার ৮৬ জন। যুক্তরাজ্যে আক্রান্ত ১ লাখ ২৯ হাজার ৪৪, মারা গেছে ১৭ হাজার ৩৩৭ জন। তুরস্কে আক্রান্ত ৯৫ হাজার ৫৯১, মারা গেছে ২ হাজার ২৫৯ জন। ইরানে আক্রান্ত ৮৪ হাজার ৮০২, মারা গেছে ৫ হাজার ২৯৭ জন। চীনে আক্রান্ত ৮২ হাজার ৭৮৮, মারা গেছে ৪ হাজার ৬৩২ জন। ব্রাজিলে আক্রান্ত ৪৩ হাজার ৭৯, মারা গেছে ২ হাজার ৭৪১ জন। বেলজিয়ামে আক্রান্ত ৪০ হাজার ৯৫৬, মারা গেছে ৫ হাজার ৯৯৮ জন। কানাডাতে আক্রান্ত ৩৮ হাজার ৪২২, মারা গেছে ১ হাজার ৮৩৪ জন। নেদারল্যান্ডসে আক্রান্ত ৩৪ হাজার ১৩৪, মারা গেছে ৩ হাজার ৯১৬ জন।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: