চার বাজেট ফোন আনছে নকিয়া

   
প্রকাশিত: ৪:৫১ অপরাহ্ণ, ১৫ আগস্ট ২০২০

ছবি: প্রতিকি

নোকিয়া হল ফিনল্যান্ডের একটি আই.টি. কোম্পানি, যারা একসময়ে পৃথিবীর সবথেকে বড় মোবাইল ফোন বিক্রেতা ছিল। কিন্তু আইফোন এমন অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল আসার পর নোকিয়া মোবাইল ধীরে ধীরে কোনঠাসা হয়ে পড়ে, আর ২০১১ সালে নোকিয়া উইনডোসের সাথে একটি চুক্তিতে সই করে যে তারা ভবিষ্যতে তাদের সমস্ত স্মার্টফোন উইনডোস ফোন প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করেই বানাবে।

জুলাই মাসে চীনের সার্টিফিকেশন সাইট টিনায় দেখা গিয়েছিল নকিয়ার একটি ফোনকে। যার মডেল নম্বর ছিল টিএ-১২৫৮। এবার এই মডেল সহ আরও তিনটি নকিয়া ফোনের মডেলকে ব্লুটুথ সিগ সার্টিফিকেশন সাইটে দেখা গেল। এই ফোনগুলো হলো- নকিয়া টিএ-১২৩৯, টিএ-১২৯৮, টিএ-১২৯২। যদিও এই চারটি মডেল কি নাম বাজারে আসবে তা জানা যায়নি। এই চারটি ফোনে ব্লুটুথ ভার্সন ৪.২ থাকবে। মনে করা হচ্ছে আইএফএ ২০২০ ইভেন্টে এই চারটি ফোনকে সামনে আনবে নকিয়া। চারটি ফোনই কোম্পানির বাজেট ফোন হবে।

টিনার ওয়েবসাইট অনুযায়ী, নকিয়া টিএ-১২৫৮ ফোনে ৫.৯৯ ইঞ্চির ডিসপ্লে থাকবে। ফটোগ্রাফির জন্য এই ফোনের পিছনে থাকবে একটি ক্যামেরা। বলাই বাহুল্য এই ফোনের সামনেও একটি ক্যামেরা থাকবে। ফোনটি ৩ জিবি র‌্যামের সাথে আসবে। স্পেসিফিকেশন দেখে পরিষ্কার ফোনটি কম দামে আসবে।

নকিয়ার এই আপকামিং স্মার্টফোনের ছবি ও সামনে এসেছে। এই ছবিগুলোতে ফোনটিকে সোনালী ও নীল রঙে দেখা গেছে। সিকিউরিটির জন্য এই ফোনের পিছনে থাকবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। আবার পিছনে সবার নিচে থাকবে কোম্পানির লোগো। ফোনের সাইডে ভলিউম ও পাওয়ার বাটন উপলব্ধ।
নকিয়া টিএ-১২৫৮ মডেলের অন্যান্য ফিচারের কথা বললে এতে ১.৬ গিগাহার্টজ অক্টা কোর প্রসেসর দেওয়া হবে। ফটোগ্রাফির জন্য এই ফোনের পিছনে ৮ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা থাকবে। আবার সামনে থাকবে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এই ফোনে ৩,০৪০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হবে। এতে গ্র্যাভিটি সেন্সর, প্রক্সিমিটি সেন্সর এবং অ্যাম্বিয়েন্ট লাইট সেন্সরের মতো বৈশিষ্ট্য দেওয়া হবে। এই ফোনের ওজন হবে ৮৪০ গ্রাম।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: