প্রচ্ছদ / ক্যাম্পাস / বিস্তারিত

জনমানবহীন ঢাবির কুকুর, বিড়ালের দায়িত্ব নিলেন রব্বানী

   
প্রকাশিত: ৪:০০ অপরাহ্ণ, ২৭ মার্চ ২০২০

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বরাবরের মতই অবলা প্রাণীর প্রতি আলাদা দৃষ্টি ভঙ্গি। ভালবাসেন এসব প্রাণীকে। ইতিমধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে তার প্রাণের ক্যাম্পাস ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। নিরব, নিস্তব্দ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস। এই নিরবতার বধ্যে বাস করছে কিছু অবলা প্রাণী। দেশের এই দুর্যোগময় মুহুর্তে এদের পাসে দারালেন এই নেতা। এমনই তথ্য দিয়ে নিজের ভ্যারিফাইড ফেসবুক পেইজে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেখানে তিনি লিখেন,

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ, আবাসিক হল গুলোও ভ্যাকেন্ট; পুরো ক্যাম্পাস জনমানবহীন শূন্য প্রায়। এমতাবস্থায় সবচেয়ে বেশি মানবেতর জীবনযাপন করছে ক্যাম্পাস ফুল, চুড়ি, চকলেট বিক্রি করা, শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা-অনুকম্পায় পেট চালানো ছিন্নমূল পথশিশু, তাদের পরিবার ও বয়বৃদ্ধ মানুষগুলো।

ফাঁকা ক্যাম্পাসে তাদের ইনকান সোর্স নেই, যাওয়ার ও খাওয়ার জায়গা নেই। আশেপাশের বস্তিঘর, ফুটপাত, হাইকোর্ট মাজার এলাকায় বসে তীর্থের কাকের মতো কারো মানবিক সাহায্যের পথ চেয়ে আছে।

আর মহাবিপদে আছে ক্যাম্পাস এবং বিভিন্ন আবাসিক হলের আঙ্গিনায় স্থানীয় বাসিন্দা, শ’খানেক কুকুর বিড়াল। ওদের খাবার দেয়ার যে কেউ নাই! ক্ষুধার্ত হলেও ওরা চিরচেনা এই পরিচিত এলাকা ছেড়ে যাবে না। দু’একজন মহৎপ্রাণ শিক্ষার্থী মাঝে মধ্যে কিছু খাবার দিচ্ছে। কিন্তু প্রতিদিন সবার জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা ওদের জন্য কষ্টসাধ্য।

এসব ছিন্নমূল অসহায় মানুষ আর অবলা প্রানী গুলোর পাশে দাঁড়ানো আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। আজ রাতে তিন/চার দিন খেতে পারে এমন খাদ্যসামগ্রী এই মানুষগুলোর কাছে পৌঁছে দেয়া হবে। এরপর প্রতি ৩/৪ দিন পর পর আবার।

আর প্রতিদিন ক্যাম্পাসের সকল কুকুর বিড়ালের খাবার নিশ্চিত করার দায়িত্ব আমি নিচ্ছি। ইনশাআল্লাহ ওরা আর অভুক্ত থাকবে নাহ।

ক্যাম্পাস খোলার আগ পর্যন্ত এভাবে চলবে…

সুহৃদগণ, এ মহতী উদ্যোগে সামর্থ্য অনুযায়ী পাশে থাকবেন বলে প্রত্যাশা করছি।

(গোলাম রাব্বানীর ফেসবুক টাইমলাইন থেকে নেয়া)

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: