জীবন যুদ্ধে করোনা জয় করেছে আরও ৬০ পুলিশ

   
প্রকাশিত: ৬:২০ অপরাহ্ণ, ২৪ মে ২০২০

প্রাণঘাতী করোনায় দেশের হয়ে যারা যুদ্ধ করছেন তাদের মধ্যে অন্যতম দেশের পুলিশবাহিনী। সকল স্বার্থ ভুলে পুলিশের এই অক্লান্ত পরিশ্রম সত্যি প্রশংসার দাবিদার। দেশের জন্য যুদ্ধ করতে গিয়ে যুদ্ধ ময়দানে ‘করোনা’ নামক এই প্রাণঘাতী ভাইরাসে এখন পর্যন্ত দেশের সাড়ে ৩ হাজারের বেশি পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন। প্রতিনিয়ত বাহিনীটিতে আক্রান্ত সংখ্যা বাড়লেও একইসঙ্গে বাড়ছে সুস্থতার সংখ্যাও। শনিবার (২৩ মে) সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, তিন হাজার ৫৭৪ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আর এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭২২ জন।

রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৬০ জন পুলিশ সদস্য করোনামুক্ত হয়েছেন। শনিবার  তাদের হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়ার পাশাপাশি ফুলেল শুভেচ্ছায় বিদায় জানানো হয়। সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) চিকিৎসা প্রটোকল অনুযায়ী তাদের পরপর দুবার করোনা টেস্ট করা হয়। টেস্টে দুবারই করোনা নেগেটিভ হওয়ায় চিকিৎসকরা তাদের করোনামুক্ত ও সুস্থ ঘোষণা করে হাসপাতাল ত্যাগের ছাড়পত্র দেন। পুলিশ সদরদপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) সোহেল রানা জানান, করোনা আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে ৭২২ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তাদের মধ্যে অনেকেই কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের উন্নত ও মানসম্মত চিকিৎসা ও সেবায় সুস্থতার হার দ্রুততার সঙ্গে বাড়ছে। শনিবার শেষ ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১৭৮ জন পুলিশ সদস্য করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সর্বমোট আক্রান্ত সংখ্যা তিন হাজার ৫৭৪ জন। এদের মধ্যে ১২ জন পুলিশ সদস্য চলমান জীবন উৎসর্গ করেছেন। সহকর্মী হারানোর শোককে শক্তিতে পরিণত করে নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ। পুলিশ সদরদপ্তর জানায়, পুলিশ সদস্যদের মধ্যে করোনা সংক্রামণ ঝুঁকি কমাতে মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদের নির্দেশে বিভিন্ন ধরনের প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। একইসঙ্গে আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের জন্য সর্বোত্তম সেবা নিশ্চিত করতে বেসরকারি হাসপাতাল ভাড়াসহ পুলিশ হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত সরঞ্জামাদি সংযোজন করা হয়েছে।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: