প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

জয়কে চিত্রনায়ক মান্নার স্ত্রীর হুঁশিয়ারি

   
প্রকাশিত: ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ, ১৫ আগস্ট ২০২০

একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে ‘জীবনের গল্প’ নামে অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন শাহরিয়ার নাজিম জয়কে জনসম্মুখে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়া, অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন প্রয়াত চিত্রনায়ক মান্নার স্ত্রী শেলী মান্না। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দীর্ঘ এক স্ট্যাটাসে এ কথা বলেন তিনি। সম্প্রতি এই অনুষ্ঠানে বিমানের সাবেক ক্যাপ্টেন মোশতাক অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলেন।

এ সময় এভিয়েশন নিয়ে অনেক প্রশ্ন করেন জয়। অতিথির জীবন বৃত্তান্ত, তার পেশাগত দক্ষতা ও কর্মময় জীবন সম্পর্কে আলোকপাত করা। এসবই ঠিক ছিল কিন্তু কেবিন ক্রুদের নিয়ে অপ্রাসঙ্গিক আলোচনা করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন শেলী মান্না।

বিষয়টি উল্লেখ করে শেলী মান্না লেখেন, জয় আপনি আপনার চিরাচরিত স্বভাবসিদ্ধ অভ্যাসে আবারো অপ্রাসঙ্গিক প্রসঙ্গ অর্থাৎ কেবিন ক্রদের সঙ্গে তাদের প্রণয়ঘটিত ব্যাপার থেকে শুরু করে, বিদেশ থেকে জিনিসপত্র এনে বিক্রি প্রসঙ্গও উত্থাপন করেছেন, যা অত্যন্ত ইনডিসেন্ট ও আপত্তিকর। ক্যাপ্টেন মোশতাক অত্যন্ত সজ্জন ও অমায়িক ব্যক্তি বিধায় তিনি এর উত্তরে একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

তার পরিপ্রেক্ষিতে আমি একটি কথা বলতে চাই, ‘এ জগতে হায়, সেই বেশী চায় আছে যার ভুরি ভুরি।’ কেবিন ক্রু সম্প্রদায় তাদের বৈধ আয় দিয়ে সচ্ছলভাবে জীবন যাপন করে এসেছে। কিছুটা টানপোড়েন তো পৃথিবীর সমস্ত সেক্টরেই চলমান রয়েছে। কোনো সেক্টরই এর ঊর্ধ্বে নয়, নইলে তো পৃথিবী জান্নাতময় হতো। ভালো শব্দের পাশাপাশি মন্দ বলে কোনো শব্দ থাকতো না।

জয় শিল্পী সমাজকে চরমভাবে হেয় করেছেন বলেও এই স্ট্যাটাসে উল্লেখ করেন। শেলী মান্না লিখেছেন—জয়, আপনি এদেশের শিল্পী সমাজকেও চরমভাবে হেয় করেছেন। যারা এ দেশের সাংস্কৃতিক জগতকে সমৃদ্ধ করে এ দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তাদেরকেও আপনার অনুষ্ঠানে অশালীন প্রশ্নে জর্জরিত করেছেন। মৌসুমী, শাবনূর থেকে শুরু করে শিল্পী সমিতিকেও ন্যূনতম সম্মান দেখাননি। অথচ আপনি একজন শিল্পী! ভাবতেও অবাক লাগে। আমরা অত্যন্ত রক্ষণশীল সমাজে বাস করি। তাই এই ব্যাপারে আপনার প্রচণ্ড সৌজন্যবোধ ও সীমারেখা থাকা উচিত ছিল।

শেলি মান্নার এমন অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে জয় বলেন, ‘আমার অতিথি ছিলেন ক্যাপ্টেন শিকদার। এ অনুষ্ঠানে এভিয়েশন নিয়ে জানার জন্য তাঁকে অনেক যৌক্তিক প্রশ্ন করি। সাধারণত ব্যক্তিগত জীবনে পাইলট, বিমানবালাদের নিয়ে সাধারণ মানুষের কৌতূহল থাকে। তেমনি একটি বিষয় পাইলটদের সঙ্গে এয়ার হোস্টেসদের সম্পর্ক, প্রেম, বিয়ে। কারণ, তাঁরা অনেক দিন একসঙ্গে কাজ করেন। বিষয়গুলো ঘটে। তাই প্রথম প্রশ্নটা সাধারণ মানুষের কৌতূহল মেটানোর জন্য যৌক্তিকভাবে করা হয়েছে। বিদেশ থেকে এ পেশার মানুষদের অনেক পণ্যসামগ্রী আনার সুযোগ থাকে। সে ক্ষেত্রে অনেকে বৈধ ও অবৈধভাবে ব্যবসা করেন। সেটা সঠিক কি না, জানতে চেয়েছি। এই যৌক্তিক প্রশ্নগুলোকে “শেলী ভাবি” অযৌক্তিক মনে করে হয়তো মাইন্ড করেছেন।’শেলী মান্না। ছবি সংগৃহীত।
শেলী মান্না। ছবি সংগৃহীত।

জয় আরও বলেন, ‘একটি আলোচনায় অনেক কিছুই আসে। সেটা কিন্তু অমূলক নয়। এখন কোনো কিছু হলেই একটা “হাইপ” তৈরি হয়। সবাইকে বুঝতে হবে, আমরা আধুনিক যুগে নতুন ধারার উপস্থাপনা করছি। সেখানে অনেক প্রশ্ন আসবে। সেটা অতিথি স্মার্টলি উত্তর দেবেন। আমি কোনো অন্যায় প্রশ্ন করিনি। শেলী ভাবিকে আমি সম্মান করি। তাঁর ব্যাপারে আমার কোনো অভিযোগ নেই। তিনি তাঁর স্বাধীনতা মতো মত প্রকাশ করেছেন।’

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: