প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

ঢাকায় বসছে কোরবানির পশুর ১২ হাট

   
প্রকাশিত: ১২:৪২ অপরাহ্ণ, ১৫ জুলাই ২০২০

করোনা ঝুঁকির কারণে রাজধানীতে এবার কোরবানির পশুর হাট সীমিত পর্যায়ে বসছে। দুই সিটিতে মোট ১২টি হাট বসানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর বাইরে যেসব হাট বসতো তা এবার বাতিল করা হয়েছে। রাজধানীতে পশুর হাট না বসাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সুপারিশ করেছিল। করোনা সংক্রান্ত জাতীয় টেকনিক্যাল কমিটিও ঢাকা, গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জে পশুর হাট না বসাতে পরামর্শ দেয়। তবে সিটি করপোরেশন পরিস্থিতি ও প্রয়োজন বিবেচনায় নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গেছে। অনলাইনে পশুর হাটকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। এ সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে ইতিমধ্যে কোরবানির পশু বিক্রির অনলাইন প্ল্যাটফরম ‘ডিজিটাল হাট’ চালু করা হয়েছে।

ডিজিটাল হাট থেকে ন্যায্যমূল্যে ক্রয়কৃত কোরবানির পশু ঢাকার ৫টি এলাকা থেকে মাংস প্রক্রিয়াকরণ করে ডেলিভারি নিতে পারবেন ক্রেতারা। উত্তরের কাওলা-শিয়ালডাঙ্গা সংলগ্ন খালি জায়গা, উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টরের বৃন্দাবন থেকে উত্তর দিকে বিজিএমইএ পর্যন্ত খালি জায়গা, সম্পূর্ণ নতুন হিসেবে ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্বাচল ব্রিজসংলগ্ন মস্তুল ডুমনি বাজারমুখী রাস্তার উভয়পাশের খালি জায়গা, ভাটারা সাঈদনগর ও আব্দুল্লাহপুর এলাকায় বেড়িবাঁধ সংলগ্ন মৈয়নারটেক শহীদনগর এলাকার ৫টি স্থানকে অস্থায়ী পশুর হাট হিসেবে ডিএনসিসির ইজারা চূড়ান্ত করেছে। করোনার কারণে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন পশুর হাট হিসেবে দরপত্র আহ্বানের পরও জনস্বার্থে ৬টি হাটের ইজারা বাতিল করা হয়। ইজারা বাতিল হাটগুলো হচ্ছে- ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের খেলার মাঠ, মিরপুর-৬ নম্বর সেকশনের ইস্টার্ন হাউজিংয়ের খালি জায়গা এবং মোহাম্মদপুর বুদ্ধিজীবী সড়ক সংলগ্ন বছিলা হাট, বাড্ডা ইস্টার্ন হাউজিং (আফতাবনগর), ভাষানটেক রাস্তার অব্যবহৃত ও পরিত্যক্ত অংশ ও পাশের খালি জায়গা, উত্তরা ১৫ নম্বর সেক্টরের ১ নম্বর ব্রিজের পশ্চিম অংশ এবং ২ নম্বর ব্রিজের পশ্চিম পাশের খালি জায়গা।

করোনার কারণে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায়ও পশুর হাটের সংখ্যা কমিয়ে দেয়া হয়েছে। এ বছর কমলাপুর লিটল ফ্রেন্ডস ক্লাব সংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, আফতাবনগর ব্লক-ই, এফ, জি-এর সেকশন ১ ও ২ নম্বর এলাকা, হাজারীবাগ লেদার টেকনোলজি কলেজ সংলগ্ন খালি জায়গা, উত্তর শাহজাহানপুর মৈত্রী সংঘের মাঠ সংলগ্ন খালি জায়গা এবং পোস্তগোলা শ্মশানঘাট সংলগ্ন খালি জায়গাসহ মোট ৫টি স্থানকে অস্থায়ী পশুর হাট হিসেবে ইজারার জন্য চূড়ান্ত করেছে ডিএসসিসি। ফলে সরকারের দেয়া স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এ সকল স্থানে পশু কেনাকাটা হবে। তবে দক্ষিণ সিটি করপোরেশন বলছে, পশুর হাটের পাশাপাশি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আদলে তারাও অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রির উদ্যোগ নিচ্ছেন। সূত্র: মানবজমিন

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: