প্রচ্ছদ / অপরাধ / বিস্তারিত

দেশ ছাড়তে বার বার পরিকল্পনা বদলেছেন সাহেদ

   
প্রকাশিত: ১:১৭ অপরাহ্ণ, ১৫ জুলাই ২০২০

বহুল আলোচিত রিজেন্ট হাসপাতাল প্রতারণা মামলার প্রধান পলাতক আসামি ও রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. সাহেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। র‍্যাবের বিশেষ অভিযানে আজ বুধবার (১৫ জুলাই) ভোরে সাতক্ষীরার সীমান্ত এলাকা থেকে অবৈধ অস্ত্রসহ তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। সাহেদকে যে স্থান থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তার অদূরেই বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত। সেখান থেকে ভারতে প্রবেশ করতে বার বার পরিকল্পনা পরিবর্তন করছিলেন তিনি। কিন্তু কোনও কিছুতেই শেষ রক্ষা হয়নি। গ্রেপ্তারের পর সংবাদ সম্মেলনে সাহেদকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি তুলে ধরা হয় র‍্যাবের পক্ষ থেকে।

গ্রেপ্তারের পর সকাল ৯টায় তাকে বহনকারী হেলিকপ্টার অবতরণ করে রাজধানীর তেজগাঁওয়ের পুরনো বিমানবন্দরে। ঢাকায় পৌঁছানোর পর সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল তোফায়েল মোস্তফা সরোয়ার বলেন, ‘আজ বুধবার (১৫ জুলাই) ভোর ৫টা ১০ মিনিটে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর গ্রামের ইছামতী খালের পাশ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।’ অতিরিক্ত মহাপরিচালক বলেন, ‘সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর গ্রামের ইছামতী খালের বিপরীত পাশেই অবস্থিত বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত। ভোররাতেই ওই সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশের কথা ছিল সাহেদের। কিন্তু আমাদের গোয়েন্দা দল সেখানে অবস্থান নিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করতে সমর্থ্য হয়।’ অতিরিক্ত মহাপরিচালক আরও বলেন, ‘সীমান্ত অতিক্রমের জন্য বার বার পরিকল্পনা পরিবর্তন করছিলেন সাহেদ। সর্বশেষ সাতক্ষীরা সীমান্ত থেকে তিনি জেলার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর গ্রামে লবঙ্গবতী নামে একটি খাল আছে। তার আরো একটি খালে আছে ইছামতী। এই খালেরই বিপরীত পাশে ভারত সীমান্ত। সীমান্ত ঘেষে নদী থাকলে তার বিপরীত পাশে কাটাতারের বেড়া ও পাহারা দুর্বল থাকে। ফলে সাহেদ এই স্থানটিকে বেছে সীমান্ত পার হওয়ার জন্য। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।’

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: