দেড় কোটি আক্রান্তের বিপরীতে করোনায় জয় করেছে সাড়ে ৬৪ লাখ

   
প্রকাশিত: ৮:২৮ পূর্বাহ্ণ, ৫ জুলাই ২০২০

প্রাণঘাতী মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চল। আজ রোববার (৫ জুলাই) সকাল পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১৩ লাখ ৭৮ হাজারে পৌঁছেছে। তাদের মধ্যে বর্তমানে ৪৪ লাখ ১১ হাজার ৬৩২ জন চিকিৎসাধীন এবং ৫৮ হাজার ৫৩০ জন (২ শতাংশ) আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে উঠেছে অনেক মানুষ। এ পর্যন্ত করোনাভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে ৬৪ লাখ ৩৩ হাজার ৯৬৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও প্রায় সাড়ে চার হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। গেলো ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছে ১ লাখ ৮৯ হাজারের বেশি। দিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু দেখেছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। একদিনে প্রাণ গেছে ১১’শ মানুষের। দোশটিতে মোট প্রাণহানি ৬৪ হাজার ছাড়িয়েছে। দিনে মৃতের তালিকায় এর পরের অবস্থানে মেক্সিকোতে প্রাণ গেছে সাড়ে ৬শ’ মানুষের। মোট প্রাণহানি প্রায় ৩০ হাজার। ভারতে শনিবার রেকর্ড মৃত্যু হয়েছে ৬১০ জনের। মোট মৃত্যুর দিক থেকে ৭ম অবস্থানে উঠে এসেছে ১৩০ কোটি জনসংখ্যার দেশটি। এদিকে, ১ লাখ ৩২ হাজারের বেশি মৃত্যু দেখা যুক্তরাষ্ট্রে কিছুটা কমছে প্রাণহানি। ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়ে একদিনে মারা গেছেন আড়াইশো মানুষ। সুস্থতার দিক দিয়ে বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিসংখ্যান জানার অন্যতম ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাসজনিত কোভিড-১৯ রোগে থেকে যুক্তরাষ্ট্রে সেরে উঠেছে ১২ লাখ ৬০ হাজার ৪০৫ জন, ব্রাজিলে ৯ লাখ ৭৮ হাজার ৬১৫, রাশিয়ায় চার লাখ ৪৬ হাজার ৮৭৯ জন, ভারতে চার লাখ ৯ হাজার ৬২, চিলিতে দুই লাখ ৫৭ হাজার ৪৪৫, ইরানে এক লাখ ৯৮ হাজার ৯৪৯, স্পেনে সেরে উঠেছে এক লাখ ৯৬ হাজার ৯৫৮ জন, ইতালিতে এক লাখ ৯১ হাজার ৯৪৪, পেরুতে এক লাখ ৮৯ হাজার ৬২১, জার্মানিতে এক লাখ ৮১ হাজার ৩০০, তুরস্কে এক লাখ ৭৯ হাজার ৪৯২, মেক্সিকোতে এক লাখ ৪৭ হাজার ২০৫, সৌদি আরবে এক লাখ ৪৩ হাজার ২৫৬, পাকিস্তানে এক লাখ ২৫ হাজার ৯৪, কাতারে ৯০ হাজার ৩৮৭, চীনের মূল ভূখণ্ডে ৭৮ হাজার ৫১৬ এবং ফ্রান্সে ৭৭ হাজার ৬০ জন সুস্থ হয়ে উঠেছে। এ ছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকায় ৯১ হাজার ২২৭, বাংলাদেশে ৭০ হাজার ৭২১, কানাডায় ৬৮ হাজার ৯৯০ জন, সিঙ্গাপুরে ৪০ হাজার ১১৭, সংযুক্ত আরব আমিরাতে ৩৯ হাজার ৮৫৭, সুইজারল্যান্ডে ২৯ হাজার ২০০, কুয়েতে ৩৯ হাজার ৯৪৩, দক্ষিণ কোরিয়ায় ১১ হাজার ৮৩২, মালয়েশিয়ায় আট হাজার ৪৬১ জন এবং অস্ট্রেলিয়ায় সাত হাজার ৩৫৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছে।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: