দৈত্যাকার এক ভবনে ১০ হাজার মানুষের বাস

   
প্রকাশিত: ১১:২৫ অপরাহ্ণ, ২ জুলাই ২০২০

ভবনটির মূল নাম বাকগা স্যাংচুয়ান। ভবনটির অবস্থান হংকংয়ের কুয়েরি বে এলাকায়। এটাই পৃথিবীর সবচেয়ে বড় আবাসিক ভবন। জাতিসংঘের তথ্য অনুসারে রাজধানী ঢাকা বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ শহর। যার প্রতি বর্গকিলোমিটারে বসবাস করে ৪৪ হাজার ৫ শত মানুষ। বর্তমান সময়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিক সব মাল্টিপ্লেক্স। তাতে হয়তো ৫০টি পরিবার বসবাস করে থাকেন। এই পঞ্চাশ পরিবারওয়ালা ঢাউস সাইজের ভবন দেখে যারা অবাক হন তাদেরকে একটা ভবনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেব, যেখানে একসঙ্গে দশ হাজার লোক বসবাস করেন। একে ভবন না বলে একটা গ্রাম বলাই শ্রেয়। কারণ বাংলাদেশের অনেক গ্রামেও এত লোক নেই।

পাঁচটি আলাদা আলাদা বিল্ডিং যুক্ত করে এই ভবন তৈরি করা হয়েছে। ১৯৬০ সালে প্রথমে এখানে একটি ভবন তৈরি করা হয়েছিল। এরপর ধীরে ধীরে পাঁচটি ভবন তৈরি করে একসঙ্গে যুক্ত করে দেওয়া হয়। আর এই যুক্তকরণের মাধ্যমে তৈরি হয়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে আবাসিক ভবন।

দৈত্যাকৃতির এই ভবনে ২ হাজার ২৪৩টি অ্যাপার্টমেন্ট আছে। মোট বাসিন্দা ১০ হাজার। অধিকাংশ নিম্নবিত্ত কিংবা বিত্তহীন মানুষের আশ্রয়স্থল এটি। কারণ হংকংয়ের মতো ব্যয়বহুল নগর রাষ্ট্রে একটি মানসম্মত বাসা নিয়ে থাকা একরকম স্বপ্নের মতো ব্যাপার। তবে বিশাল আকৃতি এবং বিপুল সংখ্যক লোক থাকার কারণেই ভবনটির পুরাতন নাম হারিয়ে গেছে। বর্তমানে এটি বিশ্বব্যাপী দৈত্যাকার ভবন নামেই পরিচিত।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: