প্রচ্ছদ / ক্যাম্পাস / বিস্তারিত

ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করায় জবি ছাত্র অধিকার পরিষদ নেত্রী বহিষ্কৃত

   
প্রকাশিত: ৮:০৩ পূর্বাহ্ণ, ২৪ অক্টোবর ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার দফতর সম্পাদককে সংগঠন থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও বহিষ্কারের দাবি উঠেছে।

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থী ওই নেত্রী বিশ্ব হিন্দু সংগ্রাম পরিষদ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখারও আহ্বায়ক।

তার কটূক্তিমূলক কিছু ফেসবুক পোস্ট ও কমেন্ট ছড়িয়ে পড়ার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

তাদের অভিযোগ, ওই ছাত্রী দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন পোস্ট ও কমেন্টের মাধ্যমে ইসলাম ধর্মানুভূতিতে আঘাতমূলক মন্তব্য করে আসছিলেন। সেসব পোস্ট ও কমেন্টের স্ক্রিনশট বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গ্রুপে ছড়িয়ে পড়লে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা শুরু হয়। তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি ওঠে শিক্ষার্থীদের গ্রুপগুলোতে।

ওই শিক্ষার্থীর এসব কর্মকাণ্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তাকে ছাত্র অধিকার পরিষদ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। পাশাপাশি তাকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না, তা জানতে চেয়ে সাতদিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর (শোকজ) নোটিশ দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু বকর খান বলেন, ‘আমরা কিছুদিন ধরেই বিষয়গুলো লক্ষ্য করেছি, পরবর্তীতে আমরা তাকে কয়েকবার (ধর্ম ও মতের প্রতি সহনশীল ও শ্রদ্ধাশীল হওয়ার জন্য) বোঝানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোস্তফা কামাল বলেন, ‘ওই শিক্ষার্থীর বেশ কয়েকটা স্ক্রিনশট আমি পেয়েছি। সেগুলো পর্যালোচনা করছি। আগামী মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয় খুললে আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যবস্থা নেবো।’

 

 

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: