প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

ধ’র্ষককে গ্রে’ফতার না করে একি করলেন মহিলা পুলিশ অফিসার!

   
প্রকাশিত: ১১:৪৪ অপরাহ্ণ, ৫ জুলাই ২০২০

জোড়া ধ’র্ষণ মামলার আসামিকে গ্রেফতার না করার বিনিময়ে মোটা অংকের অর্থ ঘুষ নেয়ার অভিযোগ উঠেছে ভারতের গুজরাটের এক নারী পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ওই পুলিশ অফিসারের নাম শ্বেতা জাদেজা। তিনি আহমেদাবাদের মহিলা থানার ইনচার্জ। এ ঘটনায় শ্বেতার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। যেকোনও সময় তাকে গ্রে’ফতার করা হতে পারে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবলে বলা হয়, জিএপি কর্প সায়েন্স নামে একটি বেসরকারি সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর কেনাল শাহের বিরুদ্ধে সম্প্রতি থানায় নারী ধ’র্ষণের অভিযোগ করেন সংস্থাটির দুই নারী কর্মী। এর আগে গেল মাসে এ ঘটনার অন্যতম প্রত্যক্ষদর্শী ওই সংস্থাটির সিকিউরিটি অফিসার কেনাল শাহর বিরুদ্ধে স্যাটেলাইট থানায় হুমকি দেয়ার পৃথক একটি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন।

দুই ধ’র্ষণের অভিযোগের একটি তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় শ্বেতা জাদেজাকে। কিন্তু অভিযোগ উঠেছে, অভিযুক্ত কেনাল শাহকে গ্রে’ফতার না করে তার কাছ থেকে ৩৫ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করেছেন তদন্তকারী ওই নারী পুলিশ কর্মকর্তা। এমনকি দাবি মতো টাকা না দিলে ২ নারী সহকর্মীকে ধ’র্ষণ ও নিরাপত্তা অফিসারকে হুমকি দেয়ার অভিযোগে ‘সামাজিকবিরোধী কার্যকলাপ প্রতিরোধ’ (পিএএসএ) আইনের আওতায় মামলা করারও হু’মকি দেয়া হয়। কোনও ব্যক্তিকে অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকার জন্য পুলিশকে আটক ও কারাগারে প্রেরণের ক্ষমতা প্রদানকে পিএএসএ অ্যাক্ট বলা হয়। সম্প্রতি শ্বেতার বিরুদ্ধে করা ক্রাইম ব্রাঞ্চের এফআইআরে এমনই অভিযোগ করা হয়েছে।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: