প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

ধর্ষণ বিরোধী মানববন্ধনেও সময় বেধে ধাক্কা দেয় পুলিশ

   
প্রকাশিত: ৬:২০ অপরাহ্ণ, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

সম্প্রতিকালে দেশে ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে ধর্ষণের ঘটনা। আর এই ধর্ষণের সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওয়তায় তেমন আনা যাচ্ছেনা বলা চলে৷ এর কারণ, অনেকেরই আছে ক্ষমতার যোগ, তাই তারা অপ্রতিরোধ্য৷এমন পরিস্থিতিতে দেশে ধর্ষণ বন্ধে ধর্ষণকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবিতে নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় মানববন্ধনের আয়োজন করেছিল তরুণরা। কিন্তু ধর্ষণ বিরোধী সেই মানববন্ধনেও সময় বেধে দেয় পুলিশ। তরুণরা ধর্ষণের বিরুদ্ধে স্লোগান দিয়ে বঙ্গবন্ধু সড়কে মিছিল করতে চাইলেও তাঁদেরকে ধাক্কা দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ।

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১১ টায় তরুণদের সংগঠন ‘এন্টি রেপ স্কোয়াড’ ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্মাইলের যৌথ উদ্যোগে ওই মানববন্ধনটি আয়োজন করা হয়। মানববন্ধন শুরু করার পর প্রায় ২০ মিনিটের মাথায় পুলিশ এসে তাঁদেরকে মানববন্ধন বন্ধ করতে বলে। এরপর সংগঠনের পক্ষ থেকে আবেদন করা হলে ৫ মিনিটের মধ্যে তাঁদেরকে সমাবেশ শেষ করে চলে যেতে বলে পুলিশ। এরপর বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে মানববন্ধন শেষ করে বঙ্গবন্ধু সড়কে মিছিল করতে চাইলে তাঁদেরকে ধাক্কা দিয়ে মূল সড়ক থেকে সরিয়ে দেয় পুলিশ।

এ প্রসঙ্গে এন্টি রেপ স্কোয়াড নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বায়ক শাহরিয়ার শুভ বলেন, ‘এটা অত্যন্ত দুঃখজনক যে আজকে আমরা কোনো রাজনৈতিক দলের ব্যানারে নয়, কিংবা কোনো ব্যক্তি স্বার্থের ব্যানারে নয়। আমরা রাজপথে দাঁড়িয়েছিলাম সারা দেশে ধর্ষণের যে ঘটনাগুলো ঘটছে সেই ধর্ষণের সুষ্ঠু বিচার ও আমাতের মা বোনদের নিরাপত্তা নিশ্চিৎ করার দাবিতে। আমরা সামাজিক সংগঠনের ব্যানারে দাঁড়িয়েছি। এখানে যারা আছে অধিকাংশই ছাত্র। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ পুলিশের ব্যবহার আমাতের মনক্ষুব্ধ করেছে। আমরা সড়ক বন্ধ করিনি, যান চলাচলেও ব্যাঘাত ঘটাইনি। কিন্তু এর পরেও তাঁরা ছাত্রদের সাথে ধাক্কাধাক্কি করেছে। তাঁদের এই অশালীন আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।’

তিনি বলেন, ‘বোন তাঁর ভাইয়ের সাথে রিকশায় যাওয়ার পথে তাঁকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়, স্ত্রী তার স্বামীর সাথে ঘুরতে যাওয়ার পর স্বামীকে বেধে রেখে স্ত্রীকে ধর্ষণ করা হয়, মা বাবাকে ঘরে তালাবন্দি করে বাক প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়। সেখানে আমার আপনার বোনের নিরাপত্তা কোথায়? আজকে পুলিশ প্রশাসন আমাদেরকে বাধা দিয়েছেন আপনাদেরকে বলতে চাই আপনাদেরও মা, মেয়ে, বোন রয়েছে। মনে রাখবেন নগর পুড়লে কেউ রক্ষা পায় না। আজ দেশব্যাপী ধর্ষণের যে ঘটনা ঘটছে। কালকে যে আপনার ঘর পর্যন্ত পৌঁছাবে না এর কোনো নিশ্চয়তা আপনি দিতে পারবেন না। কিন্তু সেদিনও যদি এরকম কোনো ঘটনা ঘটে আমরা রাজপথে আছি আগামীতেও থাকবো। এর বিচার আমরা ঠিকি চাইবো।’

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, ‘তাদের কর্মসূচিতে কোন বাধা দেয়া হয়নি। তাদের মানববন্ধন করতে দেওয়া হয়েছে। মিছিল করার জন্য তারা কোন অনুমতি নেয়নি। সড়কে বিশৃঙ্খলা যাতে না হয় তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এন্টি রেপ স্কোয়াড নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বায়ক শাহরিয়ার শুভর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন এন্টি রেপ স্কোয়াড কেন্দ্রীয় কমিটির সমন্বায়ক নূর ইসলাম মুন্সি, ফতুল্লা থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক ফাহিম চৌধুরী, সদস্য ফয়সাল আহমেদ রাতুল, সাব্বির আহমেদ, মাহফুজুর বর্বত, স্মাইল নারায়ণগঞ্জ জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক ইফতি খান, সদস্য জোবায়ের ইসলাম নিহাব প্রমুখ।

এআইআর/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: