প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

নাইমুর রহমান

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরে সংঘর্ষ ঠেকাতে পুলিশ এনে স্কুলে ভোট

   
প্রকাশিত: ৩:১০ পূর্বাহ্ণ, ১ অক্টোবর ২০১৯

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জামনগরের ভিতরভাগ বাইআপ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচনে সংঘর্ষ ঠেকাতে অতিরিক্ত পুলিশ পাহারায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অভিভাবক সদস্য নির্বাচনে প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করায় পুলিশি নিরাপত্তায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় বলে জানা গেছে।

সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এ ভোট গ্রহণ চলে। ভোটগ্রহণের সময় প্রতিদ্বন্দ্বী একটি পক্ষের হয়ে বিদ্যালয়ের আশেপাশে অবস্থান নেয় আওয়ামী লীগ কর্মীরা।

বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ায় নতুন কমিটি গঠনের লক্ষ্যে ৪ জন অভিভাবক সদস্য নির্বাচনে ৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। সোমবার বিদ্যালয়ে গোপন ব্যালটের মাধ্যমে শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। মোট ১৭২ জন ভোটারের মধ্যে ১৪৭ জন ভোট প্রদান করেন।

প্রিজাইডিং অফিসার ছিলেন মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আহাদ আলী। ভোট গণনা শেষে এ দিন বিকালে নির্বাচিত চার সদস্যের নাম ঘোষণা করেন প্রিজাইডিং অফিসার। নির্বাচিত সদস্যরা হলেন, শামসুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম, রাব্বে আলী ও রবিউল ইসলাম।

প্রধান শিক্ষক মাহামুদা বেগম জানান, প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছিল। কয়েকদিন আগে প্রার্থীদের পক্ষে লোকজন মিছিল বের করেছিল। সে কারনে ইউএনও বরাবর আবেদন করে নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল। তবে দিন ব্যাপী সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রিজাইডিং অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আহাদ আলী জানান, পুলিশি নিরাপত্তায় সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। ভোটাররা সুশৃঙ্খল ভাবে ভোট প্রদান করেছেন এবং প্রত্যেক প্রার্থীর এজেন্ট উপস্থিত ছিলেন।

বাগাতিপাড়া মডেল থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ ইন্সপেক্টর (তদন্ত) স্বপন কুমার চৌধূরী বলেন, আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে থানার পুলিশ ছাড়াও নাটোর থেকে এনে বিদ্যালয়ে মোট ২০ জন পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল।

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: