প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

মো. ইলিয়াস

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

‘নিয়ন্ত্রিত গণতন্ত্রের আদলে স্বৈরতন্ত্র চলছে’

   
প্রকাশিত: ১২:৫৬ অপরাহ্ণ, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, আমাদের সহযোদ্ধা বা ছাত্র সংগঠনের কয়েকজন নেতার নামে একটি মিথ্যা অভিযোগে মামলা হয়েছে। যেটা আমরা মনে করি পলিটিক্যাল মোটিভেটেড মামলা। যা আমাদেরকে হয়রানি এবং কোনঠাসা করার জন্য করা হয়েছে।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টকশো অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

নুরুল হক নুর বলেন, মামলাটি হওয়ার পর সেদিন দুপুরে যখন আমরা শুনতে পাই তারপর সন্ধ্যার দিকে ছাত্রসংগঠন একটি প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে। তাই প্রতিবাদ স্বরূপ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিছিল করে আমরা ফিরছিলাম। যখন মৎস্য ভবনের দিকে যে যার মতো করে চলে যাবে তখন আমার যে দায়িত্ব কর্মীদের যে যেদিকে যাবেন সেভাবেই গাড়িতে তুলে দিচ্ছিলাম। ছাত্র সংগঠনের নেতা হিসেবে যে দায়িত্ব অন্তত একটা দুঃসময়ে প্রোগ্রাম করলে নেতাকর্মীদেরকে সুন্দর রূপে যাওয়ার একটি ব্যবস্থা করে দেওয়া। সেটির জন্য আমরা আগাচ্ছিলাম।

তিনি বলেন, তখন আমাদের পিছন দিক থেকে (শাহবাগ) একদল পুলিশ আসতেছিল আমরা এটা খেয়াল করতে পারিনি। আর যখন মৎস্যভবন দিকে যাচ্ছিলাম তখন দেখছিলাম আরও একদল পুলিশ। সামনের পুলিশদেরকে লক্ষ্য করলাম তাদের হাতে কাঠের টুকরো, হকিস্টিক রড, কারো হাতে চাকু রয়েছে এবং শাহবাগেও আমরা একই চিত্র লক্ষ্য করলাম। তখন আমরা কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমাদের ওপর জঙ্গি জামায়াত শিবির বলে অতর্কিত হামলা শুরু করল। তখন ছাত্ররা আমাকে রক্ষা করার জন্য মানবঢাল তৈরি করল আর বলছিল এটা ডাকসু ভিপি নুর। পরে বলল (পুলিশ) এই ‘কুত্তার বাচ্চাকে’ আমরা খুঁজতেছি। একে ধরো, আগে ওকে সাইজ করো তারপর গাড়িতে উঠাও।

নুর আরও বলেন, তখন আমাকে বেধড়ক পেটালো এবং আমাকে রক্ষা করতে গিয়ে বেশকিছু ছাত্রনেতা আহত হয়েছে। একজনের হাতে ছুরি দিয়ে পোজ দিয়েছে পুলিশ। কারণ তাদের হাতে ছুরি ছিল। এ সময় কয়েক জনের মাথা ফেটে গেছে শারীরিকভাবে মারাত্মক জখম হয়েছে। আমি ওখানে সেন্সলেস হয়ে গেছি। আমি শুনেছি আমাকে ডিবি অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল কিন্তু আমার যখন জ্ঞান ফিরে তখন আমি দেখছিলাম ঢাকা মেডিকেলে রয়েছি।

তিনি বলেন, ‘দেশে এক ধরনের স্বৈরতন্ত্র চলছে। নিয়ন্ত্রিত গণতন্ত্রের আদলে স্বৈরতন্ত্র চলছে। আমরা মনে করি বর্তমান প্রেক্ষাপট সেই পাকিস্তানি সামরিক শাসকদের থেকেও জগন্য।’

 

 

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: