প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

পদত্যাগের হুমকি দিলেন এমপি বাদল

     
প্রকাশিত: ১০:১৩ পূর্বাহ্ণ, ২৬ জুন ২০১৯

ছবি: ইন্টারনেট

জাতীয় সংসদ শুধু ‘জি হুজুর’ বলার জন্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন জাসদের কার্যকরী সভাপতি মঈন উদ্দিন খান বাদল। গত ১০ বছর ধরে সংসদে কথা বলে আসলেও প্রতিফলন হয়নি বলে অভিযোগ করে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত এই সংসদ সদস্য ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, চট্টগ্রামে কালুরঘাট ব্রিজের কাজ শুরু না হলে সংসদ থেকে পদত্যাগের হুমকি দিয়েছেন চট্টগ্রাম-৮ আসনের এমপি ও বাংলাদেশ জাসদের কার্যকরী সভাপতি মঈন উদ্দীন খান বাদল।

মঙ্গলবার (২৬ জুন) রাতে সংসদে বাজেট অধিবেশনের আলোচনায় সরাসরি এই হুমকি দেন তিনি।

বাদল বলেন, চট্টগ্রামে কালুরঘাট ব্রিজের প্রকল্পে ৪বার ফিজিবিলিটি স্টাডি হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার এসএমবিসি ফিজিবিলিটি স্ট্যাডি করেছে, তাইওয়ানের ‘ওইকন’ও করেছে, বাংলাদেশের এইচ কনসালটেন্ট করেছে। এটা শেষ হওয়ার পর দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে কথা হয়েছে। এই প্রজেক্টের প্রস্তাবিত ব্যয় ধরা হয়েছিল এক হাজার একশ তেষট্টি কোটি টাকা।

তিনি আরও বলেন, তারমধ্যে থেকে জিওবি ফান্ড থেকে ৩৭৯ কোটি টাকা, বাকি পুরা টাকা দিচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া। ৪০ বছরের টার্নেল করা হবে। তার সুদ শুন্য দশমিক শুন্য এক শতাংশ। এত কিছুর পরও হয় না। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে কালুরঘাট ব্রিজের অগ্রগতি না হলে এই সংসদ থেকে চলে যাব। এই রকম অপমান মেনে নেয়া যায় না।’

বাদল বলেন, কুড়ি হাজার কোটি টাকার প্রকল্প সেটা বেড়ে এক লাখ কোটি টাকা করার প্রস্তাব করা হয়। কি কারণে? এটা তামাশা করার দেশ নাকি? যারা প্রজেক্ট বানায় তাদের ধরে এনে পেটানো উচিৎ।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘কী রকম সরকার চলছে? যিনি মন্ত্রী হবেন তিনি উনার বাড়িতে কাজ নিয়ে যাবেন। তাহলে আমরা কী? কিসের জন্য এই সংসদ।’

পরিকল্পিতভাবে প্রকল্প গ্রহণ না করা এবং বারবার খরচ বাড়ানোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘এটা কী তামাশার দেশ পাইছেন? প্রকল্পের খরচ ২০ হাজার কোটি। সেই খরচ এখন হচ্ছে এক লাখ কোটি টাকা। একটা ব্রিজের কাজ শুরু করেন। বলেন, এটার খরচ ২০ হাজার কোটি। এখন কত কোটি? কী কারণে এটা হবে। যারা প্রজেক্ট বানায় তাদের ধরে পেটানো উচিত। তুমি আমার দেশের টাকা নিয়ে তামাশা করো?’

তিনি আরও বলেন, ‘মাতারবাড়িতে ১ হাজার ২০০ মেগাওয়াট কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের ব্যয় ৩৩ হাজার কোটি টাকা। এক লাখ কোটি টাকা দিয়ে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র কেন করছেন? ‘হু উইল পে দিজ এক্সপেনসেস?’’

এসএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: