প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

পাপনের বক্তব্যের উল্টো কথা বললেন লঙ্কান ক্রিকেট চেয়ারম্যান

   
প্রকাশিত: ৪:০৬ অপরাহ্ণ, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য মঞ্চ প্রস্তুত ছিল। এমন সময়ে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে, বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের ১৪ দিনের কোয়ারেনটিনে থাকতে হবে, ৭ দিন সম্ভব নয়। আর এর সঙ্গে ছিল আরও নানান শর্ত। এমন সব কঠিন শর্ত মেনে শ্রীলঙ্কা সফর করা সম্ভব নয় বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। তবে এবার লঙ্কার ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান শাম্মি সিলভা জানালেন, বিসিবি’র সঙ্গে নাকি ৭ দিনের কোয়ারেনটাইন নিয়ে কোনো কথাই হয়নি শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট বোর্ডের! অর্থাৎ বিসিবি প্রেসিডেন্টের বক্তব্যের পুরো বিপরীত তথ্য দিলেন তিনি।

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের অবাঞ্চিত শর্ত মানতে নারাজ বিসিবি। আর এমন সব কঠিন শর্ত মেনে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে লঙ্কা সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি পাপন। বাংলাদেশের এমন সিদ্ধান্তের পর শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে শর্তগুলো পুনরায় বিবেচনার জন্য পরামর্শ দেন দেশটির যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী নামাল রাজাপাকশে। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) আলোচনা শেষে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সংবাদ সম্মেলনে জানান, শ্রীলঙ্কা বোর্ড যেভাবে এই সিরিজ আয়োজন করতে চাইছে সেভাবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলা সম্ভব নয়। প্রথমে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে শ্রীলঙ্কার বোর্ডকে জানানো হয় যে, কোয়ারেনটিনের সময় ১৪ দিন থেকে কমিয়ে যেন ৭ দিনে আনা হয়। এছাড়াও কোয়ারেনটিনে থাকাকালীন যেন ক্রিকেটাররা অনুশীলন করতে পারে। বিসিবির মতে, শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড জানিয়ে দিয়েছে এর কোনোটিই সম্ভব নয়। দেশটির ক্রিকেট বোর্ড বিসিবিকে জানিয়েছে, কোয়ারেনটিনের সময় ১৪ দিনই থাকবেন। এবং সেই সঙ্গে বিসিবি’র এইচপি টিমও যেতে পারবে না। আর কোয়ারেনটিনে থাকা অবস্থায় টাইগার ক্রিকেটাররা অনুশীলনও করতে পারবেন না।

এদিকে, বিসিবি’র এমন তথ্য প্রকাশ করার পর কড়া জবাব দিয়েছেন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের চেয়ারম্যান শাম্মি সিলভা। শ্রীলঙ্কার আইল্যান্ড পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘তারা যদি এটা বলে থাকে, তবে সেটা ভুল। আমি আসলেই বুঝতে পারছি না কেন তারা এক সপ্তাহের কথা বলছে। সাত দিনের কোয়ারেনটিনের বিষয়ে বিসিবি’র সঙ্গে আমাদের কোনো কথাই হয়নি।’ দেশের স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমোদন ছাড়া কোয়ারেনটিনের সময় কোনোমতেই কমানো সম্ভব নয়, দৃঢ়তার সঙ্গে জানিয়েছেন শাম্মি সিলভা। তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য বিভাগের কথার বাইরে যাওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। এটা নিশ্চিত বাংলাদেশ দলকে বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেনটাইনেই থাকতে হবে।’ লঙ্কান বোর্ড চেয়ারম্যান আরও যোগ করেন, ‘যদি তারা (বাংলাদেশ) শ্রীলঙ্কায় আসার আগে কোয়ারেনটাইন করেও আসে, তারপরও কলম্বোতে পা রাখার পর হোটেলে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেনটাইন পালন করতে হবে। আর তার সার্বিক খরচ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটই বহন করবে।’

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: