প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

নুরুল আমিন

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

পাহাড়ে সর্বোপরি সমস্যার কারণে সরকারের সাথে মানুষের দূরত্ব বাড়ছে: ঊষাতন তালুকদার

   
প্রকাশিত: ৬:২৯ অপরাহ্ণ, ২ ডিসেম্বর ২০২০

পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার বলেছেন, শান্তিচুক্তির ২৩ বছর পরেও যথাযথ বাস্তবায়ন না হওয়ার কারণে পার্বত্যাঞ্চলের সার্বিক পরিস্থিতি অস্থিতিশীল, উদ্বেগজনক এবং হতাশা। পাহাড়ে সর্বোপরি এসব সমস্যার কারণে সরকারে সাথে মানুষের দূরত্ব বেড়ে গেছে। তা কি আরও বাড়তে দিবো নাকি কমিয়ে আনবো, এটি এখন সিদ্ধান্ত সরকারের উপরে।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) সকালে রাঙ্গামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সম্মেলন কক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির ২৩তম বর্ষপূতি উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পাহাড়ে মানুষ কি অবস্থায় আছে,পাহাড়ে কি অবস্থা বিরাজ করছে, সেটি বাইরে মানুষ জানে না। আসলে কি প্রতারণার জন্য চুক্তি করা হয়েছিল নাকি পাহাড়িদের ঠেকিয়ে রাখার জন্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে চুক্তি করা হয়েছিল। এই বিষয়টি আমাদের ভেবে দেখা দরকার। পার্বত্যাঞ্চলের মানুষের সাথে আর বাড়াবাড়ি নয়,এই অঞ্চলের মানুষকে মানুষ মনে করেন এবং সবাইকে নিয়ে দ্রুত চুক্তি বাস্তবায়ন করেন। তাই যদি না হয়,কাউকে হুমকি দেয়া লাগবে না। আপনারই বুঝেন, পার্বত্যাঞ্চলের পরিস্থিতি কেমন হবে। তাই উদার মন নিয়ে এগিয়ে আসুন এবং চুক্তি বাস্তবায়ন করুন। পার্বত্যাঞ্চলের মানুষ দেশের শত্রু নয়,এরা হয়তো বাঁচার তাগিদে অধিকারের জন্য সোচ্চার থাকে। কিন্তু এই নয় তারা বাংলাদেশের শত্রু।

তিনি আরও বলেন, হয়তো চুক্তি করার ক্ষেত্রে মানুষের বিরোধীতা ছিলো। কিন্তু চুক্তি তো হয়ে গেছে। এটি তো এখনও বাতিলও করা হয় নাই আবার এটিকে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। একপাশে রেখে দেওয়া হয়েছে। একপাশে রেখে দিয়ে দেশের বাইরে বলা হচ্ছে আমরা চুক্তি বাস্তবায়ন করেছি,পাহাড়ে শান্তি বিরাজ করছে কিন্তু ভিতরে ভিতরে অশান্তি। এভাবে লুকোচুরি না করে সুর্স্পষ্টভাবে বিষয়টিকে দেখুন এবং পূনঃবিবেচনা করুন। দেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির দিকে উন্নত হয়েছে সুতারাং লুকোচুরি করার কোন অবকাশ নাই। শাক দিয়ে মাছ ঢাকে রাখা যাবে না।

আলোচনা সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সৌখিন চাকমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম, পার্বত্য অঞ্চলের সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা, ট্রাষ্টি বোর্ডের সদস্য এড. সুস্মিতা চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম যুব সমিতির রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাগর ত্রিপুরা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ম্রানু মারমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জগদীশ চাকমা প্রমুখ।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: