প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

পিনাক-৬ ট্রাজেডির ছয় বছর, অজ্ঞাতপরিচয়ে ২১ জনের মরদেহ

   
প্রকাশিত: ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ, ৪ আগস্ট ২০২০

২০১৪ সালের এই দিনে মাঝ পদ্মায় দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায় পিনাক ৬ লঞ্চটি। ছয় বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো মারা যাওয়া ২১ জনের পরিচয় মেলেনি। পদ্মায় ডুবে যাওয়া পিনাক-৬ ট্রাজেডির ছয় বছর পূর্তি আজ মঙ্গলবার।

২০১৪ সালের ৪ আগস্ট মুন্সীগঞ্জের মাওয়ায় উত্তাল পদ্মার প্রবল ঢেউয়ে পিনাক-৬ নামের যাত্রীবাহী একটি লঞ্চ ডুবে যায়। সরকারি হিসেবে এই দুর্ঘটনায় ৪৯ যাত্রীর প্রাণহানি ঘটে। নিখোঁজ হন ৬৪ যাত্রী। পরে ভাটি অঞ্চল থেকে নিখোঁজদের মধ্যে ৩৯ জনের গলিত মরদেহ উদ্ধার করে শিবচরের পাচ্চর স্কুল মাঠে রাখা হয়। স্বজনরা পোশাকসহ নানা চিহ্ন দেখে ১৮ জনের পরিচয় নিশ্চিত করে মরদেহ নিয়ে যান। তবে ২১ জনের কোনো স্বজন পাওয়া যায়নি। পরে সরকারের তরফে ওই ২১ জনের মরদেহ শিবচর পৌর কবরাস্থানে দাফন করা হয়। ‘১ থেকে ২১’ পর্যন্ত একেকটি লাশের পরিচয় নম্বর দিয়ে দাফন করা হলেও গেল ৬ বছরে সেই পরিচয় সংখ্যাও মুছে গেছে কবর থেকে। কিন্তু আসল পরিচয় শনাক্ত হয়নি তাদের।

এ বিষয়ে শিবচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসাদুজ্জামান বলেন, তৎকালীন প্রশাসন পরিচয়হীন ২১ লাশের দেহ থেকে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করে তা সংরক্ষণ করেন। ওই সময়ে নিখোঁজদের অনেক স্বজনের দেহ থেকে নমুনা নিয়ে তা পরীক্ষা করা হলেও মেলেনি। এতে অজ্ঞাতপরিচয়ে থেকে গেছে ২১ জনের মরদেহ।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: