প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

প্যাংগং লেক থেকে এখনো সেনা সরায়নি চীন

   
প্রকাশিত: ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ, ১২ জুলাই ২০২০

লাদাখে চীনা দখলদারি নিয়ে নতুন তথ্য সামনে এসেছে। ভারত এবং চীনের মধ্যে আলোচনার সিদ্ধান্ত হিসেবে প্যাংগং লেকের ধারের ফিংগার ৪ এলাকা চীনা সেনা এখনও সম্পূর্ণ খালি করে দেয়নি বলে উপগ্রহ চিত্রে সামনে এসেছে। তবে আগের তুলনায় দখলদারী বাহিনীর উপস্থিতি অনেক কমেছে। তবে পুরোপুরি খালি করেনি চীন। থমিক সমঝোতার অংশ হিসেবে দুপক্ষই দেড় থেকে দুই কিলোমিটার পর্যন্ত সেনা সরিয়ে নিয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছিল।

সীমান্তের বিতর্কিত ফিঙ্গার-৪ ১০ জুলাইয়ের স্যাটেলাইটে তোলা ছবিতে দেখা যায়, চীনা নির্মাণ, তাঁবু ও শেড এখনো ওই এলাকায় রয়ে গেছে। চীনা সেনারা পুরোপুরি দুই কিলোমিটার পেছনে সরে গেছে এমন দাবি করা যাবে না বলে জানিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। বলা হচ্ছে, চীনা হোভারক্রাফ্ট প্যাংগং লেক সংলগ্ন এলাকায় পড়ে রয়েছে। এমনকি ১০টি বড় মাপের নৌকাও ফিঙ্গার-৪ এলাকার পূর্ব প্রান্তে ধরা পড়েছে স্যাটেলাইট চিত্রে। সমঝোতা হয়েছিল প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলএসি) বরাবর দুই কিলোমিটার পিছু হটবে দুই দেশের বাহিনী। সীমান্তের কয়েকটি বিতর্কিত জায়গায় সেই সমঝোতা সম্পন্ন করেছে দুই দেশের সামরিক বাহিনী। জানা গেছে, হটস্প্রিং ও গোগরা এলাকা থেকেও পিছু হটবে চীন ও ভারতীয় বাহিনী। প্যাংগং লেকের ফিঙ্গার ৪ এলাকায় চীনা সেনাদের গতিবিধি পরিলক্ষিত হয়েছিল। তাঁবু থেকে সামরিক সজ্জা সরানোর উদ্যোগ নিয়েছে চীনা বাহিনী। সাম্প্রতিক উপগ্রহ চিত্রে দেখা গেছে, এলএসি’র ডি-ফ্যাক্টো বর্ডার এলাকায় অবস্থান করছে চীনা বাহিনী। সেখানেই তাদের অবস্থানের কথা। যে চারটি জায়গা থেকে বাহিনী সরাবে দুই বাহিনী, সেগুলো হলো লাদাখ গালওয়ান উপত্যকা, হটস্প্রিংস, গোগরা এবং প্যাংগংয়ের ফিঙার রিজিয়ন। স্যাটেলাইট চিত্রে দেখা গিয়েছে, কিছু জায়গায় স্থাপনাগুলো ভেঙে দেওয়া হয়েছে এবং জায়গাটি পরিষ্কার। এই এলাকাটি পেট্রোল পয়েন্ট ১৪ নম্বরে, যেখানে ১৫ জুন চীনা সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা জওয়ান নিহত হন। তবে হতাহতের কথা স্বীকার করলেও সংখ্যা প্রকাশ করেনি চীন।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: