প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মনজুরুল ইসলাম

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

প্রেমের পর পালিয়ে বিয়ে, যৌতুকের জন্য পেট্রোল দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা

   
প্রকাশিত: ৮:২৪ অপরাহ্ণ, ১৭ জুলাই ২০২০

ময়মনসিংহের তারাকান্দায় প্রেম করে পালিয়ে বিয়ে করার দুই বছর পর যৌতুক না পেয়ে খোদেজা আক্তার সুমিকে (২০) পেট্রোল দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করেছে স্বামী। এ ঘটনা স্বামী বিল্লাহ হোসেন (২৫) ও শ্বাশুরী কুলসুম বেগম (৫০) গ্রেফতারর করেছে পুলিশ। নিহত খোদেজা আক্তার সুমি ফুলপুর উপজেলার সাহাপুর তাতার কান্দা গ্রামের মৃত কাশেম আলী মেয়ে। গ্রেফতারকৃত বিল্লাল হোসেন উপজেলার কাকনী ইউনিয়নের তিয়ারকান্দি গ্রামে হাশু মিয়ার ছেলে ও বিল্লাহ হোসেনের মাকে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার (১০ জুলাই) উপজেলার কাকনী ইউনিয়নের তিয়ারকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এর আগে বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই স্ত্রীকে হত্যার পরিকল্পনা করে বাজার থেকে পেট্রোল কিনে নিয়ে আসে বিল্লাল।

নিহতের বড় ভাই কাউসার হোসেন উজ্জল জানান, দুই বছর পূর্বে ফুলপুর উপজেলার সাহাপুর গ্রামের মৃত আবুল কাশেম এর কন্যা খোদেজা আক্তার সুমি প্রেমের টানে পালিয়ে বিয়ে করে। এরপর থেকেই যৌতুকের জন্য খোদেজাকে যৌতুকের জন্য মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করেন বিল্লাহ হোসেন।

তিনি আরও বলেন, গত ১০ জুলাই শুক্রবার সকালে কাশেম মেম্বারের বাড়িতে তাকে ডেকে নিয়ে যৌতুকের জন্য খোদেজা আক্তার সুমিকে নিয়ে বকাবাধ্য ও মারধর করে। এসময় সুমি মারধর করার ভয়ে প্রয়োজনীয় জামা-কাপড় নিয়ে বাবার বাড়ী যেতে চাইলে পিছন থেকে পেট্রোল ছিটিয়ে বিল্লাল হোসেন আগুন ধরিয়ে দেয়।

এ সময় সুমির আত্ম-চিৎকারে আশেপাশের লোকজন সুমিকে উদ্ধার করে ফুলপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

পরে আশংকাজনক অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বার্ন ইউনিটে প্রেরণ করে। মেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (১৫ জুলাই) সুমি মারা যায়।

তারাকান্দা থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) নিহতের বড় কাউসার হোসেন উজ্জল বাদী হয়ে চারজনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরও বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকা থেকে স্বামী বিল্লাল হোসেন (২৫) ও শ্বাশুরী কুলসুম বেগম (৫০) কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওসি আবুল খায়ের বলেন, গ্রেপ্তারকৃত বিল্লাল হোসেন (২৫) ও শ্বাশুরী কুলসুম বেগম (৫০) কে আজ শুক্রবার (১৭ জুলাই) আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলেও জানান তিনি।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: