প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

বক্তব্য পাল্টে ফেলল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, এবার মাস্ক পরা নিয়ে যা বলল

   
প্রকাশিত: ১১:০৪ পূর্বাহ্ণ, ৬ জুন ২০২০

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের বিস্তারের শুরু থেকেই ফেস মাস্ক পরা নিয়ে স্বাস্থ্যবিষয়ক বিভিন্ন সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নানামুখি ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ ও পরামর্শ দিয়ে আসছিল। সংক্রমণ এড়াতে সুস্থ ব্যক্তির ফেস মাস্ক পরতে হবে- এ নিয়ে যথেষ্ট তথ্য-প্রমাণ নেই বলে জানিয়েছিল খোদ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এবার ফেস মাস্ক পরা নিয়ে নিজেদের বক্তব্য পাল্টে ডব্লিউএইচও বলছে, নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জনসমাগমস্থলে মাস্ক ব্যবহার করা উচিত। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি আজ শনিবার (৬ জুন) এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

এদিকে, ডব্লিউএইচওর নতুন এই নির্দেশনার আগে থেকেই জনসমাগমস্থলে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরার নির্দেশনা দিয়েছে কিছু দেশ। এর আগে ডব্লিউএইচওর পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, সুস্থ ব্যক্তি ফেস মাস্ক পরতে হবে, এ নিয়ে যথেষ্ট তথ্য প্রমাণ নেই। এ ছাড়া সংস্থাটি সবসময়ই বলে আসছিল, করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি ও যারা কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় নিয়োজিত থাকবে, তাদের জন্য মেডিকেল মাস্ক পরতে হবে। তবে সংস্থাটি এখন থেকে সবাইকে কাপড়ের বা সুতার তৈরি মাস্ক পরার পরামর্শ দিয়েছে, যেটি মেডিকেল মাস্ক নয়। ডব্লিউএইচওর রোগতত্ত্ববিদ মারিয়া ভ্যান কারকভ বলেছেন, ‘আমরা সব দেশের সরকারকে পরামর্শ দিচ্ছি, যাতে তারা সাধারণ মানুষকে মাস্ক পরার জন্য উদ্বুদ্ধ করে।’ তবে ডব্লিউএইচও আরো বলছে, করোনাভাইরাসের ঝুঁকি কমাতে ফেস মাস্ক পরিধান করা একটি উপায়মাত্র। শুধু মাত্র ফেস মাস্ক পরলেই যে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কমবে, তা নয়।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: