এ আর রাশেদ

ইবি প্রতিনিধি

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করায় ইবির আরেক শিক্ষার্থী বহিষ্কার

   
প্রকাশিত: ১১:২৫ অপরাহ্ণ, ৮ এপ্রিল ২০২০

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটুক্তি করায় এবার আরেক শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) প্রশাসন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বঙ্গবন্ধুকে ফেরেশতারূপে সর্বত্র হাজির করা ও তার হত্যার বিচারকে ব্যবসা বলে কটুক্তি করায় তাকে বহিষ্কার করা হয়। বহিস্কার হওয়া শিক্ষার্থীর নাম আশিকুল ইমলাম পাটোয়ারী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবী ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র এবং ছাত্র মৈত্রী ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার কর্মী বলে জানা গেছে। বুধবার (৮ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে বহিষ্কারের বিষয়টি জানানো হয়।

অফিস আদেশে বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আশিকুল ইসলাম পাটোয়ারী বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে যে মন্তব্য করেছে তা অবমাননাকর ও মর্যাদাহানিকর। এরূপ মন্তব্য জাতির পিতার প্রতি অসম্মানজনক, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করেছে। এ কারণে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো। এছাড়া তাকে কেন চুড়ান্তভাবে বহিষ্কার করা হবে না, এ মর্মে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সাত কার্যদিবসের মধ্যে কারণদর্শাতে বলা হয়েছে। এছাড়া বিষয়টি যাচাই-বাছাইয়ের জন্য তিন সদস্যদের তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

কমিটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মনকে আহবায়ক, আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. রেহেনা পারভীন ও পরিসংখ্যান বিভাগের সভাপতি ড. সাজ্জাদ হোসেনকে কমিটির সদস্য করা হয়েছে। কমিটিকে যথা শিগগির সম্ভব তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। জানা যায়, বুধবার (৮ এপ্রিল) বিকেলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের একটি পোস্টে আশিকুল ইসলাম পাটোয়ারী বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের বিচারকে ব্যবসা এবং বঙ্গবন্ধুকে ফেরেস্তারূপে হাজির করা হয়েছে বলে ব্যাঙ্গ বিদ্রূপ করেন।

এরপর সন্ধ্যায় এক বিবৃতির মধ্যেম তাকে ছাত্র মৈত্রীর সকল কার্যক্রম থেকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র মৈত্রী। বিবৃতিতে বলা হয়, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তার স্ট্যাটাস অবমাননাকর ও কুরুচিপূর্ণ। এ কারণে তাকে ছাত্র মৈত্রীর সকল কার্যক্রম থেকে স্থায়ী বহিস্কার করা হয়েছে। এ দিকে এ ঘটনার পর সন্ধ্যা থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ওই পোস্টের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের একাধিক নেতাকর্মী। এসময় তারা ওই শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিস্কারের দাবি জানান। প্রসঙ্গত, এর আগে মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের বিচারকে ‘পুরানো কাসুন্দি ঘাটা’ বলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্রী তানজিদা সুলতানা ছন্দকে সাময়িক বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: