এ আর রাশেদ

ইবি প্রতিনিধি

বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার নিয়ে কটুক্তি করায় ইবি ছাত্রী বহিস্কার

   
প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, ৭ এপ্রিল ২০২০

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যার বিচার নিয়ে কটুক্তি করায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক ছাত্রীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ওই ছাত্রীর নাম তানজিদা সুলতানা ছন্দ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। মঙ্গলবার (৭ এপ্রলি) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, তিনি (ওই ছাত্রী) যে মন্তব্য করেছেন তা জাতির পিতার প্রতি অসম্মানজনক ও এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে। এ কারণে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়া কেন তাকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে, এ মর্মে বিষয়টি যাচাইয়ের জন্য তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মনকে এই কমিটির আহবায়ক, আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. রেহেনা পারভীন ও পরিসংখ্যান বিভাগের সভাপতি ড. সাজ্জাদ হোসেনকে কমিটির সদস্য করা হয়েছে। কমিটিকে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পরবর্তী সাত কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যার আত্মস্বীকৃত খুনি মাজেদকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার হওয়ার পর মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক কর্মী ও বাংলা বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী সাজ্জাদ হোসেন তার ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন।

ওই পোস্টে তানজিদা সুলতানা ছন্দ মন্তব্য করেন, ‘শেখ মুজিব যদি খুন না হত তাহলে কি সে এখনো পর্যন্ত বেচে থাকতো? মুজিবর রহমান অনেক বয়স পরই মারা গেছেন। কিন্তু আমরা আদিখ্যেতা জাতি একজনের খুনের বিচার করতে করতে ভুলেই যাই প্রতিদিন কতশত মানুষ আমাদের আশেপাশে খুন হচ্ছে, গুম হচ্ছে। আমরা পুরাতন কাসন্দি নিয়ে খুব বেশি ঘাটাঘাটি করতে পছন্দ করি।’

ওই মন্তব্যের পর বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদ ও শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তারা ওই ছাত্রীকে আইনের আওতায় আনার পাশাপাশি তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান। পরে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে সাময়িক বহিষ্কার করে।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: