বন্ধ ক্যাম্পাসে টিএসসিতে ছাত্রলীগ-ছাত্রদলের মারামারি

   
প্রকাশিত: ১:২৩ অপরাহ্ণ, ২ জুলাই ২০২০

দেশে করোনায় বিপর্যস্ত পুরো দেশ। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে বন্ধ রাখা হয়েছে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আর এই বন্ধের মধ্যেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের কর্মীদের মধ্যে ঘটেছে মারামারির ঘটনা। বুধবার (১ জুলাই) সন্ধ্যা সাতটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিমের অনুরোধে ডাকসু সদস্য ও ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা তানভীর হাসান সৈকতের নেতৃত্বে কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থী টিএসসি এলাকায় ভিড় করা মানুষদের চলে যেতে বলছিলেন। এ সময় টিএসসিতে থাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল নেতা মাহফুজুর রহমান চৌধুরীর ছাত্রলীগ নেতা ইমাম হোসেনের কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে দুপক্ষের নেতা-কর্মীরা জড়ো হলে মুহুর্তেই মারামারি বেধে যায়। তবে ডাকসু সদস্য তানভীর হাসান সৈকত গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা নিয়মিতই প্রক্টরিয়াল বডির অনুরোধ টিএসসিতে ভিড় না করতে মাইকিং করছিলাম। এ সময় টিএসসিতে ছাত্রদল নেতা-কর্মীরা ছিলেন। ছাত্রদল নেতা মাহফুজ বান্ধবী নিয়ে তখন ঢোকেন। ইমাম তার পরিচয় জিজ্ঞেস করে, সে শিক্ষার্থী পরিচয় দিলে ইমাম চলে যায়। কিন্তু মাহফুজ তাঁকে ধাক্কা দেন।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘এতে ইমামের পা ম্যানহোলে আটকে গেলে খাবার বিক্রেতার ছেলে মানিক দৌঁড়ে গিয়ে ইমামকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু ততক্ষণে ছাত্রদলের অন্য নেতা-কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ইমাম ও মানিককে মারতে শুরু করেন। টিএসসিতে অবস্থানরত ইমামের বন্ধু সাহাদ আমিনকেও ছাত্রদল নেতা-কর্মীরা মারধর করেন। একপর্যায়ে উপস্থিত সাংবাদিকসহ কয়েকজন ব্যক্তি তাঁদের উদ্ধার করেন। ভুক্তভোগীরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি হন। এ ঘটনায় মানিকের হাত ভেঙে গেছে।’ তবে ছাত্রদল নেত্রী মানসুরা আলম ঘটনাটিকে সদ্যসাবেক ডাকসু সদস্য তানভীর হাসানের ‘ভণ্ডামি’ বলে উল্লেখ করেছেন। এই নেত্রীর অভিযোগ, ‘তানভীরের নির্দেশেই ছাত্রদল নেতা মাহফুজুর রহমান চৌধুরীর ওপর হামলা হয়েছে৷ ছাড়ানোর চেষ্টা করতে গিয়ে আমি নিজেও একদফা মার খেয়েছি। ইমাম ছেলেটা একাধিকবার আমাদের দিকে তেড়ে আসে মারতে। উপস্থিত লোকজন তাকে আটকান কোনোমতে। এরপর মাহফুজকে নিয়ে আমরা ঢাকা মেডিকেলে যাই। সেখানে ওকে চিকিৎসা দিতে দিতেই সাংবাদিকদের ফোন পাই যে আমরাই নাকি তানভীর ও তার লোকজনের ওপর হামলা করেছি।’

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: