প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

বরিশালে ভাই-ভাবীকে কুপিয়ে জখম

   
প্রকাশিত: ১২:০৪ অপরাহ্ণ, ২৯ নভেম্বর ২০২০

ছবি: প্রতীকী

বরিশালের হিজলা উপজেলায় ভাই-ভাবীকে এলোপাথারি কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে। শনিবার (২৮ নভেম্বর) রাতে উপজেলার গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের কোড়ালিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

হামলায় গুরুতর আগত দুলাল বাবুর্চি ও তার স্ত্রী নিলুফা বেগমকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে দুলালের অবস্থা আশংকাজনক। তার বাম পা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এছাড়াও তার শরীরে ১৫/২০টি ধারালো অস্ত্রের কোপের চিহ্ন রয়েছে।

আহত দুলাল বাবুর্চি ও হামলাকারী নুরু বাবুর্চি ওই গ্রামের মৃত হাসেম বাবুর্চির ছেলে। নুরুর বিরুদ্ধে থানায় ডাকাতি, অস্ত্র এবং কুপিয়ে জখমের একাধিক মামলা রয়েছে। সম্প্রতি নুরু একটি অস্ত্র মামলায় ১৪ বছরের সাজা খেটে কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে ফের দাঙ্গা হাঙ্গামার পথ বেছে নেয়।

স্থানীয় বাসিন্দা মো. পলাশ জানান, রাত ৮টার দিকে দুলাল মোটর সাইকেলযোগে উপজেলার কাউরিয়া বাজার থেকে নিজ বাড়িতে যাচ্ছিল। বাড়িতে প্রবেশের সাথে সাথে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা তার ছোট ভাই নুরু ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে। সাথে সাথে দুলাল মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এরপর শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাথাড়ি কোপাতে থাকে। তার বাম পা কুপিয়ে প্রায় বিচ্ছিন্ন করা হয়।

এ সময় তার দুলালের স্ত্রী নিলুফা স্বামীকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে নুরু। তাদের শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হিজলা থানার ওসি অসীম কুমার সিকদার বলেন, নূরু দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। সম্প্রতি সে কারাগার থেকে মুক্ত হয়। এভাবে একাধিকবার কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে সে আবার পূর্বের চেহারায় ফিরে যায়। তার হাতে গ্রামের প্রায় ২৫ জন লোক আহত হয়।

ঘটনার পরপরই পরিদর্শক (তদন্ত) ফারুক উল ইসলামের নেতৃত্ব পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নূরুকে আটকের চেষ্টা চলছে বলে জানান ওসি।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: